আন্তর্জাতিক ডেস্ক: 

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দিন শেষ হয়ে যায়নি। চেয়ারের দরকার নেই তিনি আবার ফিরে আসবেন বলে মন্তব্য করেছেন তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ শরিফ। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে নওয়াজ শরিফ প্রধানমন্ত্রী পদের অযোগ্য ঘোষণার পর তিনি এ ধরনের মন্তব্য করেন।

বিরোধীদলের বিজয়োল্লাসের প্রতিক্রিয়ায় মরিয়ম নওয়াজ টুইট করেন, আরও একজন নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতাচ্যুত করা হল; কিন্তু শিগগিরই বেশি শক্তি ও সমর্থন নিয়ে তিনি ফিরে আসবেন ইনশাল্লাহ। আপনারা পিএমএলএন-এর সঙ্গেই থাকুন।

তিনি আরও বলেন, ২০১৮ সালে বিজয়ী হয়ে নওয়াজের ফিরে আসার পথ হয়তো আজকের এ ঘটনা আরও সুগম করে দিল। তাকে থামানো অসম্ভব। ইনশাল্লাহ। কেউ থামাতে পারলে থামান!

হাস্যজ্জ্বল কয়েকজন নেতার পাশে বেশ ফুরফুরে মেজাজে নিজের বাড়িতে বসে থাকা নওয়াজের ছবিসহ এক টুইট করে মরিয়ম অারও লেখেন, কোনো শাস্তি দেয়ার সময় প্রকৃত ভদ্র লোকেরা এভাবেই হাসেন।

তবে পাঞ্জাবের আইনমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ ডন নিউজকে জানান, পিএমএলএন-এর জন্য এটা অত্যন্ত কঠিন একটা সময়। তবে দলের সমর্থন নওয়াজ শরিফের সঙ্গেই রয়েছে।

রাজ্যের তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব সংবাদ সম্মেলনে বলেন, নওয়াজের চেয়ারের কোনো দরকার নেই। তিনি নিজেই তার জ্বলন্ত প্রমাণ। সেদিন আর বেশি দূরে নেই, যেদিন চতুর্থবারের মতো নওয়াজ নির্বাচিত হবেন।

তিনি আরও বলেন, কিছু সিদ্ধান্ত কোর্টে নেয়া হয়, আর কিছু সিদ্ধান্ত দেয় জনগণ। অামরা একটা সিদ্ধান্তে হেরে গেছি। এতে আমি বিস্মিত হইনি … তবে মনঃক্ষুণ্ন হয়েছি।

পিএমএলএন পার্কিস্তানের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দল। আমাদের সবচেয়ে বেশি রাজনৈতিক কর্মী রয়েছে। আর ইতিহাস সাক্ষী হয়ে থাকবে যে, নওয়াজকে পদ থেকে সরানোর পর পাকিস্তানের জনগণ তাকে সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে আবার পার্লামেন্টে নিয়ে আসবে, বলেন তিনি।

পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে নওয়াজ শরিফের পরিবারের দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে শুক্রবার তাকে অযোগ্য ঘোষণা করেন সুপ্রিম কোর্ট। রায়ের পর শুক্রবারই নওয়াজ শরিফ পদত্যাগ করেন।

রায়ে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনের জন্য নওয়াজ উপযুক্ত নন। এছাড়া তার এবং তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে বিচার বিভাগের গুরুতর আপত্তির কারণে নওয়াজ পদত্যাগ করেছেন।

সূত্র : ডন নিউজ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •