এম.এ আজিজ রাসেল:

অনেক বাধা অতিক্রম করে অবশেষে শহরে হাসপাতাল সড়কে ৭ কোটি টাকার সরকারি জমি অবৈধ দখল মুক্ত হয়েছে। ২৭ জুলাই সকালে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) পঙ্কজ বড়ুয়া ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সেলিম শেখ এর নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে ওই জমি দখলমুক্ত করা হয়। অভিযানকালে জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) পঙ্কজ বড়ুয়া জানান, অবৈধ ভাবে সরকারী খাস খতিয়ানভুক্ত ৭০০১ দাগের প্রায় ৩০.৭১ শতক জমি জমি দখল করে হাসপাতাল সড়কে ভবন নির্মাণ করা হচ্ছিল। অবৈধ দখলকারীদের একাধিকাবার নোটিশ দেয়া হয়। কিন্তু তারা নোটিশে কোন জবাব দেয়নি। তাই জমিটি উদ্ধারে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। বর্তমানে ওই জমির মূল্য ৭ কোটি টাকা। এতে সরকার তার সম্পত্তি ফিরে পেয়েছে। অবৈধ দখলদারদের হুশিয়ার করে তিনি জানান, এরকম অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করে সরকারি সকল খাস জমি উদ্ধার করা হবে অচিরেই।

জানা যায়, হাসপাতাল সড়কে সরকারি ওই জমি দখল করে কতিপয় প্রভাবশালী চক্র ভবন নির্মাণ করে আসছিলো। চক্রটি বিভিন্ন মহলকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করে রাতারাতি বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করে। এছাড়া ভবনের চারপাশে রাস্তার উপর দোকান নির্মাণ করে একাধিক ব্যক্তি থেকে ২-৫ লাখ টাকা সালামী নিয়ে ভাড়া দেয়া হয়। এ নিয়ে কেউ কিছু বললে ওই প্রভাবশালীরা নানা রকম হুমকী-ধমকী দিতো। রাস্তার উপর দোকান নির্মাণের কারণে ওই সড়কে হরদম যানজট লেগে থাকতো। তাছাড়া পথচারীদের দুর্ভোগ নিয়ে চলাচল করতে হতো। এ নিয়ে সংবাদপত্রে অনেকবার তথ্যবহুল সংবাদ প্রকাশিত হয়। কিন্তু তাতে অবৈধ দখলকারীরা কোন কিছুতেই কর্ণপাত না করে সরকারি জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত রাখে। তাই প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযানে অবশেষে সরকারি জমিটি দখলমুক্ত করা হয়। এতে জেলা প্রশাসনকে সাধুবাদ জানান সচেতন মহল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •