সংবাদদাতা, পেকুয়া:

পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রয়াত আ.ক.ম শাহাবুদ্দিন ফরায়েজির আত্মাকে শান্তি দিন। তার লাশ নিয়ে ব্যবসা বন্ধ করুন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জন্য আজীবন নিজেকে উৎসর্গ করে যাওয়া এ মানুষটিকে কবরে শান্তিতে থাকতে দিন। তার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে যে ব্যবসা শুরু করেছেন তা এখনি বন্ধ করুন। তার মৃত্যুকে কেন্দ্র উপজেলারর বিভিন্ন মানুষ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে মামলা আসামি করার নামে যে টাকা হাতিয়ে নিয়ে কাড়িকাড়ি সম্পদের মালিক বনে গেছেন। সাধারণ মানুষ সবকিছু বুঝেন।

রবিবার (১৬জুলাই) বিকেল উপজেলার টইটং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় স্থানীয় চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলামকে উদ্দেশ্য করে এসব কথা বলেন পেকুয়া উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও কক্সবাজার জেলা পরিষদ সদস্য জাহাঙ্গীর আলম।

এসময় তিনি আরো বলেন, ওই ব্যক্তি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে টইটংয়ে শান্তি বিনষ্ট হয়েছে। সাধারণ মানুষ নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন। মনে রাখবেন আপনি এক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। আমি ছয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য। সাধারণ জনগণের সাথে আমি সবসময় আছি। টইটং ইউনিয়নের আর একটি মানুষের সাথেও যদি আর কোন অবিচার হয়, আমি সাধারণ মানুষদের সাথে নিয়ে তা প্রতিহত করবো।

কক্সবাজার জেলা পরিষদের মাধ্যমে বাস্তনায়নের জন্য আয়োজিত পঞ্চ বার্ষিকী পরিকল্পনা ও অগ্রাধিকার তালিকা প্রণয়নের লক্ষে আয়োজিত এ মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ সাবেক সহসভাপতি এম.কম কামাল হোসেন, সহসভাপতি শহিদুল্লাহ বিএ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কাজীউল ইনসান, আওয়ামীলীগ নেতা মাশেক এলাহি, টইটং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাবেক সভাপতি কবির হোসেন, সভাপতি সরেওয়ার কামাল, যুগ্ন সম্পাদক মাষ্টার কামাল হোসেন, আইন সম্পাদক জমির হোসেন, টইটং ইউপির সদস্য আবুল কাশেম প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন টইটং ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি এনামুল হক ও সাধারণ সম্পাদক মো বাচ্চু মিয়া।

এসময় পেকুয়া উপজেলা যুবলীগ সহসভাপতি আলহাজ্ব শফিউল আলম, যুবলীগ নেতা আজগর আলী, জাফর আলম, হারুনুর রশিদ, সাবেক ইউপি সদস্য জলিলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, ব্যবসায়ী ও জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •