চৌফলদন্ডিতে এক মাসে দুই খুনের বিচার চেয়ে স্মারকলিপি

সংবাদদাতা:

কক্সবাজার সদরের চৌফলদন্ডিতে এক মাসে দুই খুনের ঘটনায় জড়িতদের বিচার চেয়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে স্মারকলিপি দিয়েছে এলাকাবাসী।

বুধবার প্রদান করা স্মারকলিপিতে বলা হয়, কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসীর কারণে এলাকাবাসী অতীষ্ট। অত্যাচারে জনবীবন স্থবির। চিহ্নিত চক্রটি সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে রেখেছে। মুক্তিপণ আদায়, গুম, হত্যাসহ নানা অপরাধকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে সংঘবদ্ধ চক্রটি। তাদের অতিসত্ত্বর গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনা না হলে পুরো এলাকায় অশান্তির দাবানল জলবে।

মাত্র এক মাসের মাথায় তাদের এলাকার বদিউর রহমানের ছেলে মাদরাসা শিক্ষক সাইফুল ইসলাম ও ছৈয়দ আহমদের ছেলে প্রবাস ফেরত যুবক ছৈয়দ করিমকে নির্মমভাবে খুন করা হয়। এ সব ঘটনায় পুরো এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। ভয়ে মানুষ চলাফেরা করছেনা।

ঘাতকদের বিচার চেয়ে এলাকাবাসীর মানববন্ধন ও বিক্ষোভ।

এলাকাবাসী মনে করেন, আইনের সঠিক প্রয়োগ না থাকায় একের পর এক খুনের মতো জঘন্য ঘটনা সংঘটিত হয়ে যাচ্ছে। অার ঘাতকরা রয়ে যাচ্ছে বরাবরই অধরা। এ কারণে ঘটকরা আগামীতে আরো উৎসাহিত হবে বলে তাদের মন্তব্য।

স্মারকলিপিদাতারা অত্যন্ত দুঃখের সাথে উল্লেখ করেছেন, এলাকায় যারা হত্যাকান্ডসহ অপরাধকর্মের বিপক্ষে অবস্থান গ্রহণ করেছেন, প্রতিবাদ করে যাচ্ছেন- তাদের বিভিন্ন মাধ্যমে প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে যাচ্ছে অপরাধীচক্র। মেধাবী শিক্ষক সাইফুল ইসলামের ঘাতক এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী সাহাব উদ্দিন, ছৈয়দ করিমের ঘাতক নরপিশাচ ওসমান গনি তাদের অপরাধ কর্ম নিয়ন্ত্রণে শক্তিশালী সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তুলেছে। যা চৌফলদন্ডিবাসী অবগত।

ঘাতকদের ছুরিকাঘাতে নিহত মাদরাসা শিক্ষক সাইফুল ইসলাম

সন্ত্রাসীরা এতই ভয়ংকর যে, দিনদুপুরে হত্যা, লুটপাট, ধর্ষণসহ নানা অপরাধ করে যাচ্ছে। ভয়ে কেই মুখ খোলেনা। খুনের শিকার পরিবারের সদস্যরা উল্টো জীবন নিয়ে হুমকীর মুখোমুখি। অসহায় পরিবারগুলো খুবই যন্ত্রণার দিন কাটাচ্ছে।

সাধারণ মানুষের প্রশ্ন, এত অপরাধ করেও কেন সন্ত্রাসীরা গ্রেফতার হয়না? তাদের শক্তির উৎস কোথায়? এলাকাকে বাসযোগ্য রাখতে হলে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। প্রয়োজনে ফাঁসির রশিতে ঝুলাতে হবে বলেও মনে করেন ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যরা।

জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেনকে স্মারকলিপি প্রদানকালে এহছানুল হক, আবদুস ছবিহ, শহিদুল হক, ছৈয়দ নূর, হাফেজ আহমদ, আহমদ হোসাইন, নুরুল আমিন, সাদ্দাম হোসাইনসহ এলাকার মান্যগন্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

জবাবে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

এদিকে চৌফলদন্ডিসহ আশ পাশের এলাকায় অপরাধ নিয়ন্ত্রণ করতে জরুরি ভিক্তিতে পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের দাবী তুলেছে এলাকাবাসী। পাশাপাশি ইয়বা ব্যবসা, মাদকদ্রব্য বিকিকিনি বন্ধে স্থানীয় প্রশাসনকে আরো বেশী সতর্ক হওয়ার আহবান করেছেন চৌফলদন্ডির বাসিন্দারা।

সর্বশেষ সংবাদ

রুবেল মিয়ার মেজ ভাইয়ের মৃত্যুতে সদর ছাত্রদলের শোক প্রকাশ

হালদা দূষণের অপরাধে বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ রাখার নির্দেশ : জরিমানা ২০ লাখ টাকা

তরুণ সাংবাদিক হাফিজের শুভ জন্মদিন আজ

চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদী’র বরাদ্দ থেকে ১৫০০ পরিবারে চাউল বিতরণ

কলেজ আমার কাছে দ্বিতীয় পরিবার

রামু উপজেলা ছাত্রদল যুগ্ম আহবায়ক সানাউল্লাহ সেলিম কে শোকজ

No more than 2500 Easy Bikes in the city, Acting D.c Ashraf

An awaiting repatriation

25 elites relate to Yaba, SP Masud Hussain

উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই : সড়ক বিভাগের জমিতেই নান্দনিক ৪ লেন সড়ক

কক্সবাজারে এইচএসসিতে পাসের হার ৫৪.৩৯%

নিজেকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করতে পারেন কাদের

ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করবেন যেভাবে

নিমিষেই এনআইডি যাচাই করবে ‘পরিচয়’

মনের শক্তিতে জিপিএ-৫ পেলো পটিয়ার সাইফুদ্দিন রাফি

হজে এবার ৮০০ কোটির ওপরে আয় করবে বিমান

ধর্মীয় নেতাদের উসকানিমূলক বক্তব্য নিয়ন্ত্রণের প্রস্তাব ডিসি সম্মেলনে

ওসি খায়েরের চ্যালেঞ্জ ছিল রোহিঙ্গা, মনসুরের চ্যালেঞ্জ ইয়াবা

রামুর তাঁতী লীগ নেতা মোঃ কায়েস মেম্বারের সফল অপারেশন সম্পন্ন

এইচএসসিতে নাইক্ষ্যংছড়ি সরকারী কলেজের পাসের হার ৭৯.১১শতাংশ