শিশু ও শিক্ষক হত্যার আসামীরা ইয়াবা বানিজ্যে!

হুমায়ন কবির জুশান, উখিয়া :
সীমান্তবর্তী উপজেলা টেকনাফের বহুল আলোচিত কলেজ শিক্ষক সামশুল আলম ও শিশু বোরহান হত্যা মামলার ৩ আসামীরা এখন ইয়াবা বানিজ্যে। এ দুটি হত্যা মামলার আসামীরা জামিনে বেরিয়ে এসে ইয়াবা বানিজ্যের মাধ্যমে বর্তমানে অঢেল সম্পদের মালিক। এতে দুটি হত্যা মামলা থেকে অব্যাহতি পেতে তারা উঠেপড়ে লেগেছে। যাদের বিরুদ্ধে কথা বলা হচ্ছে তারা ৩ জনই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী।
জানা যায়, ২০১৫ সালের ৩ ফেফ্রয়ারী টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের আলীখালী গ্রামে ইয়াবা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে শত শত লোকের সামনে প্রকাশ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী জিন্নাহ ও মোস্তাক প্রকাশ গুজুর নেতৃত্বে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা জামাল হোছনের শিশু পুত্র বোরহান উদ্দিনকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করে। ঘটনাস্থলে বোরহানের মৃত্যু নিশ্চিত করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। সেদিন রাতে শিশু বোরহানের মা খুরশিদা বেগম বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১১,তাং-০৩-০২-২০১৫ ইংরেজি। এতে আসামী করা হয় উত্তর আলীখালী এলাকার ফরিদ আহম্মদের ছেলে দিদারুল আলম জিন্নাহ ও মোস্তাক আহমদ গুজুসহ ১০ জনকে। হত্যাকান্ডের পর জিন্নাহ ও মোস্তাক আদালতে আত্মসমর্পণ করে অভিযোগ গঠন না হওয়া পর্যন্ত জামিন পান। জামিনে এসে র‌্যাবের ক্রয়ফায়ারে নিহত নুর মোহাম্মদের ম্যানেজার হিসেবে ইয়াবা ব্যবসায় সম্পৃক্ত হওয়া জিন্নাহ ইয়াবা সিন্ডিকেট গড়ে তুলে। পরিবর্তিতে এ ব্যবসায় যুক্ত করে তার ভাই মোস্তাক প্রকাশ গুজুকে। পরে তাদের নিয়ন্ত্রিত সিন্ডিকেট আশেপাশের পুরো ইয়াবা বানিজ্যের নিয়ন্ত্রন নেয়। সাগর পথ সহ বিভিন্ন মাধ্যমে ইয়াবা বানিজ্য নিবিঘ্নে চালিয়ে নিতে ম্যানেজ করে রাখে স্থানীয় প্রভাবশালী নেতা সহ পুলিশের র্দুনীতিবাজ গুটিকয়েক সদস্যকে। এতে অল্প সময়ে বিপুল পরিমান সম্পদের মালিক বনে যায় তারা। হৃীলা ছাড়াও কক্সবাজার ও চট্রগ্রামে ফ্লাটবাড়ী ত্রুয় করে তাতে ইয়াবা মজুতের আড়ত হিসেবে ব্যবহার শুরু করে। তাদের সিন্ডিকেট ছড়িয়ে পড়ে কক্সবাজার চট্রগ্রাম ঢাকা সহ সর্বত্র। বর্তমানে শিশু বোরহান হত্যা মামলা থেকে বাদ যেতে তারা ইয়াবার মাধ্যমে গড়া মোটা অংকের টাকার মিশন নিয়ে নেমেছে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে বিগত ২০১৪ সালের ৩১ অক্টোবর বিকেলে হোয়াইক্যং আওয়ামীলীগ নেতা ফিরোজ চৌধুরীর উপস্থিতিতে জমি বিরোধ সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে খারাংখালী গ্রামের মৃত মোহাম্মদ ইলিয়াছের পুত্র মহি উদ্দিনের নেতৃত্বে ১৫/২০ জনের একদল সন্ত্রাসী টেকনাফ ডিগ্রী কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক মো. শামসুল আলমকে পিটিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহত শিক্ষকের স্ত্রী দিলসাদ আক্তার বাদী হয়ে স্বরাষ্টমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন সহ জ্ঞাত-অজ্ঞাত ৪১ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। পুলিশ এ মামলায় মহিউদ্দিনকে গ্রেফতার করলেও ৬ মাস না যেতেই সে জামিনে বেরিয়ে আসে। কক্সবাজারের আলোচিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ইয়াবা মুফিজ নিহত হওয়ার পর সে গড়ফাদারের ভুমিকায় অবতীর্ণ হয়ে ক্ষমতাশীন দলের আশ্রয়ে থেকে ইয়াবা বানিজ্যের মাধ্যমে গড়ে তুলে সারাদেশে বিশাল সিন্ডিকেট। এ সিন্ডিকেটের মাধ্যেমে সে টেকনাফ থেকে সাগর পথেই সে বড় বড় ইয়াবার চালানগুলো ঢাকায় পৌছে দিচ্ছে। সেও হত্যা মামলা থেকে বাদ যেতে উঠেপড়ে লেগেছে। শিশু বোরহান হত্যা মামলার আসামি দুই ভাই জিন্নাহ ও মোস্তাকের ব্যাপারে জানতে চাইলে স্থানীয় জাফর মেম্বার জানান, শিশু বোরহান হত্য মামলার আসামী এ দুইজন এলাকার চিন্থিত ইয়াবা গড়ফাদার,তারা এলাকার যুবসমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। যুবকদের দিয়ে সারাদেশে ইয়াবা পাচার করে যাচ্ছে এলাকার সবাই তা জানে। অন্যদিকে কলেজ শিক্ষক নিহত শামসুল আলমের ভাগিনা আয়াজ উদ্দিন অভিযোগ করে জানান, জামিনে এসেই হত্যা মামলার আসামি মহিউদ্দিন মামলা তুলে নিতে আমার মামীসহ অন্যান্যদের হুমকি ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এতে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। হত্যা মামলা আসামীদের ইয়াবা বানিজ্যের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে টেকনাফ থানার ওসি মাঈন উদ্দিন বলেন,তাদের ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া হবে,অপরাধী কাউকেই ছাড় দেওয়া হবেনা।

সর্বশেষ সংবাদ

নিরিবিলি তেলাফপিয়া হ্যাচারী পরিদর্শন করলেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর

ঈদগড় ইউপি চেয়ারম্যান ভুট্টুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা

রাঙামাটির চন্দ্রঘোনায় বালিভর্তিট্রাকের চাপায় নিহত ২

যারা প্রধানমন্ত্রীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে চায় তাদের বিরুদ্বে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে- মেয়র মুজিবুর রহমান

আলোকিত মানুষ হতে হলে পড়াশুনার কোন বিকল্প নেই- কউক চেয়ারম্যান

মাতারবাড়িতে ডাম্পার খাদে পড়ে দুই শ্রমিক নিহত

শিক্ষার্থীদের ফাঁসাতে বাসে আগুন দেয় হেলপার নিজেই!

প্রথম আলো বিতর্ক উৎসবের ঈদগাঁও পর্ব বৃহস্পতিবার

ভারুয়াখালীতে কাইয়ুম উদ্দিনের চশমা মার্কার গণসংযোগ

পুলিশের মালখানায় চুরি: নতুন তালা দিয়ে গেলো ‘সচেতন’ চোর

নির্বাচন করছেনা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তারেক বিন মোক্তার

রাঙামাটিতে ব্রাশফায়ারের ঘটনায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি

সশস্ত্র হামলার ঘটনায় আবারো উত্তপ্ত রাঙামাটি

রোহিঙ্গাদের হাতে স্মার্ট ফোন, নিরাপত্তা ঝুঁকি বাড়ছে

৩৬০ টাকার জন্য দেওয়া হয়নি এইচএসসি পরীক্ষা, আজ দেশ সেরা শিল্পপতি!

রাতের অন্ধকারে বদলে যায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প

চমেক হাসপাতালে দর্শনার্থী প্রবেশে আবারো পাস চালু

নির্বাচনে অনিয়মের প্রতিশোধ মানুষের জীবন নিয়ে হয় না: চট্টগ্রামে সিইসি

সকল মুসলমান আমার ভাই, কষ্ট ভাগ করে নিতে নিউজিল্যান্ড সফর করবো: এরদোগান

নিউজিল্যান্ডের পর এবার অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণ সতর্কতা জারি