শহিদ রুবেল, উখিয়া:
রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়নের গোয়ালিয়া পালংয়ে বন্যার তোড়ে এবং পাহাড় ধ্বসে ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট বিধ্বস্ত সহ  ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পানের বরজ, গবাদি পশু, রাস্তাঘাট সহ আনুমানিক ৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাক আহমদ।
সরেজমিনে দেখা যায়, সোনারপাড়া -গোয়ালিয়া সড়কে পাহাড় ধ্বসে পড়া সহ গোয়ালিয়া দক্ষিণ পাড়া ব্রিক সলিং, পাহাড় পাড়া ব্রিক সলিং , পশ্চিমের গোদার পাড়া রাস্তা আংশিক এবং সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে। এইছাড়াও পূর্ব পাড়া, মধ্যম পাড়া, দক্ষিণ পাড়া, উত্তর পাড়া, পশ্চিম পাড়া কিছু বাড়ি আংশিক এবং মোঃ আলম, ফয়েজ আহাম্মদ, ফেরদোস, লাল মিয়া, জাফর আলম, হোসেন আহম্মদ, মফিজ, সরওয়ার, ইসলাম খাতুন,বদিউর রহমান, মোঃ কবির, খালেদা আক্তার, সোনামিয়ার বাড়ি ধ্বসে পড়েছে। ৬ জুলাই বৃহস্পতিবার সকালে ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোস্তাক আহমদ ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাসমুহ পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের নগদ টাকা, শুকনা খাবার বিতরণ করেছেন।
স্থানীয় পাহাড় বিধ্বস্তে ক্ষতিগ্রস্থ শামশুল আলম জানান, পাহাড় ধ্বসে বসতবাড়িটি সম্পূর্ণ মাটির সাথে মিশে গেছে। ইউপি সদস্য মোস্তাক আহমদ আমাদের উদ্ধার করে আশ্রয় প্রদান করেন।
এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে আরো জানা যায়, ভয়াবহ বন্যায় পানির পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এইসময় মেম্বার মোস্তাক এলাকায় শুকনা খাবার এবং নগদ টাকা প্রদান করে সাহায্য করেছেন।
খুনিয়াপালং ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোস্তাক আহমদ বলেন, আকস্মিক বন্যা, পাহাড়ী ঢল এবং পাহাড় ধ্বসে পড়ায় বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে গোয়ালিয়া পালং। ব্যক্তিগত তহবিল থেকে সহযোগীতা করা হলেও জরুরী ভিত্তিতে আরো ত্রাণ সহায়তা প্রয়োজন। গোয়ালিয়া পালংকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবী জানান তিনি।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •