গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কাশিমপুরের নয়াপাড়া এলাকায় সোমবার রাতে মাল্টি ফ্যাবস লিমিটেড নামের একটি পোশাক কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৮ জন নিহত ও কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে ধারণা করছেন উদ্ধারকর্মীরা। নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তার নাম আল আমিন (৩০)। বাকি হতাহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

গাজীপুরের ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক মো. আখতারুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের জয়দেবপুর, সাভারের ইপিজেড, কালিয়াকৈর ও টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা সন্ধ্যা পৌনে ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করে।

তিনি জানান, সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে ওই কারখানায় বিকট শব্দে বয়লার বিস্ফোরণ ঘটে। এতে কারখানার চারতলা ভবনের দুতলা পর্যন্ত একপাশের অংশ ধসে পড়ে।

বিস্ফোরণের পর স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। তারা আহতদের উদ্ধার করে কোনাবাড়ি, কাশিমপুর, গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সাভারসহ বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে পাঠানো হয়।

স্থানীয়রা জানায়, ঈদের ছুটির পর কারখানাটি মঙ্গলবার খোলার কথা ছিল। তবে সোমবার ডাইং ইউনিটের বয়লার সেকশনটি চালু ছিল। নিচতলায় ২৫-৩০ জন শ্রমিক কাজ করছিলেন। সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে হঠাৎ করে বিকট শব্দে বয়লারটি বিস্ফোরণ ঘটলে চারতলা ভবনের নিচতলা ও দুতলার দুই পাশের দেয়াল, দরজা-জানালা ও মেশিনপত্র উড়ে যায় এবং বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

এ সময় কারখানার সামনের রাস্তা দিয়ে যাতায়াতকারী বেশকিছু সাধারণ মানুষ আহত হন। বিস্ফোরণের ফলে আশেপাশের কারখানার ভবনগুলো কেঁপে ওঠে এবং দরজা-জানালার কাঁচ ভেঙে যায়। এতে আশেপাশের শ্রমিক এবং সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার পরপরই ওই এলাকায় বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক প্রণয় ভূষণ দাশ জানান, বিস্ফোরণের ঘটনায় রাত ৯টা পর্যন্ত ৫ জনের মরদেহ এবং গুরুতর আহতাবস্থায় রুকন মিয়া (২৫) নামে এক শ্রমিককে হাসপাতালে আনা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। তার নাম আল আমিন (৩০)। বাড়ি কাশিমপুর নয়াপাড়ায়।

ঘটনার খবর পেয়ে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. রাহেনুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাখাওয়াৎ হোসেন ও র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

তদন্ত কমিটি গঠন

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর জানান, বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনায় গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রাহেনুল ইসলামকে প্রধান করে ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সাত কার্যদিবসের মধ্যে এ কমিটিকে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। এ কমিটিতে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, শিল্প পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তাদের সদস্য করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •