অনলাইন ডেস্ক ; এবছর ঈদুল ফিতরে সারা দেশের ২৭৫টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে তিনটি ছবি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস অভিনীত ‘রাজনীতি’, শাকিব খান ও শুভশ্রী অভিনীত ‘নবাব’ এবং কলকাতার জিৎ, শুভশ্রী ও বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া অভিনীত ‘বস টু’। পরেই দু’টি ছবিই যৌথ বাংলার। যা নিয়ে ঈদের আগে কম জল ঘোলা হয়নি। তারপরও বাংলাদেশি নির্মিত ‘রাজনীতি’ ছেড়ে বেশির ভাগ সিনেমা হলগুলো বেছে নিয়েছে নবাব ও বস-টু ছবিটি।

জানা গেছে, যৌথ প্রযোজনা ছবি দুটির দখলে বাংলাদেশের ২৩৫টি হল, সেখানে রাজনীতির দখলে মাত্র ৪০টি হল। তাই তো রাজনীতি ছবির পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস অনেকটা আক্ষেপের সুরে ফেসবুকে লিখেছিলেন, বাংলাদেশের জন্য সিনেমা বানিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতরে, বাংলাদেশের কাছ থেকে ফিতরা হিসেবে কিছু হল পেয়েছি।

যাই হোক, রাজনীতি যে হল মালিকদের সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণিত করতে সক্ষম হয়েছেন তা ইতোমধ্যে বোঝা যাচ্ছে। শুরুর দিন থেকেই রুপালি পর্দা কাঁপিয়ে যাচ্ছে সিনেমাটি। মুক্তির প্রথম দিনে প্রতিটা হলই ছিলো হাউজফুল। ছবিটি নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ ছিল অনেক বেশি। আজ মঙ্গলবারও বিভিন্ন হলে ছবিটি হাউসফুল যাচ্ছে। ছবির নির্মাতা বুলবুল বিশ্বাস মনে করছেন ছবি মুক্তির দ্বিতীয় সপ্তাহেও দর্শকদের এই ভিড় অব্যাহত থাকবে।

ঈদের পর মঙ্গলবার নির্মাতা বুলবুল বিশ্বাস একটা স্ট্যাটাস দেন। সেখানে তিনি লেখেন, চলবে রাজনীতি। পরে সেখানে শ্রাবণ শাহ নামের বিএফডিসি সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একজন লেখেন, কুমিল্লা জেলা লাকসাম থানায় পলাশ সিনেমা হলে নবাব ছবিটি দর্শক বর্জন করে সিনেমা হল ভাঙচুর করে। সেই সাথে তার পাশের সিনেমা হলে রাজনীতির ছবিটি দর্শক উপভোগ করে।

বুলবুল বিশ্বাস আরও বলেছেন, দর্শকদের সারিতে বসে মুভিটি দেখে যা বুঝেছি, দর্শকদের মাতিয়ে যাচ্ছে ‘রাজনীতি’। ছবিটির কাজের সময় শাকিব খান এবং অপু বিশ্বাসসহ সকল অভিনয়শিল্পী নিজেদের সেরা অভিনয় করেছেন। যে কারণে ছবিটি দর্শকরা ভালোভাবে গ্রহণ করেছে। গল্পের টার্নগুলো দর্শকদের মুগ্ধ করেছে।

‘রাজনীতি’ ছবিতে শাকিব ও অপু ছাড়াও আরও অভিনয় করছেন আনিসুর রহমান মিলন, আলী রাজ, পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়শ্রী কর জয়াসহ অনেকে।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •