ব্যাংকের আমানতে বর্ধিত আবগারি শুল্ক থাকছে না। প্রস্তাবিত বাজেটে আবগারি শুল্ক বর্ধিত হার ও নিয়ম বাতিল করে পূর্বেটাই বহাল রাখা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আলোকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আবগারি শুল্ক থেকে যে পরিমাণ রাজস্ব আদায় হওয়ার কথা ছিল তা ব্যাংক ঋণ ও অন্যান্য খাতে শুল্ক হার পরিবর্তন করে মেটানো হবে। অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

জানা গেছে, চলতি বাজেট অনুযায়ী ব্যাংক হিসাবে ২০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত থাকলে তার ওপর ১৫০ টাকা আবগারি শুল্ক দিতে হচ্ছে। প্রস্তাবিত নতুন বাজেটে এক লাখ টাকা পর্যন্ত ব্যাংক হিসাবে থাকলে তা শুল্কমুক্ত থাকবে এবং লাখ টাকার ওপরে জমা থাকলে আবগারি শুল্ক বাবদ এক হাজার টাকা কেটে নেবে সরকার। আসছে জুলাই থেকে আবগারি শুল্কের নতুন এই নিয়ম কার্যকর হওয়ার কথা ছিল।

জানা গেছে, ব্যাংক আমনতের ওপর বর্ধিত আবগারি শুল্ক প্রস্তাব বাতিল করে রাজস্ব আদায়ে বিকল্প প্রস্তাব প্রস্তুত করেছে এনবিআর তথা অর্থ মন্ত্রণালয়। যা  বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে উপস্থাপন করা হয়েছে। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ে এ বিকল্প প্রস্তাবনা উপস্থাপন করা হয় বলে জানা গেছে।

প্রস্তাবিত বাজেটে আবগারি শুল্কের হার বাড়ানো নিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন অর্থমন্ত্রী। জাতীয় সংসদে বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকার দলীয় সংসদ সদস্যরাও এর সমালোচনা করেন। কিন্তু তাতে অর্থমন্ত্রী তার অবস্থানে অনড় থাকেন। কিন্তু পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের প্রেক্ষিতে এই বর্ধিত শুল্ক বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট অনুযায়ী, যেকোনো সময় ব্যাংক হিসাবে এক লাখ থেকে ১০ লাখ টাকা জমা দিলে বা তুললে ৮০০ টাকা আবগারি শুল্ক কেটে রাখা হবে। আগে রাখা হত ৫০০ টাকা।

একইভাবে, ১০ লাখ থেকে এক কোটি টাকা পর্যন্ত কোনো হিসাবে জমা দিলে বা তুললে দুই হাজার ৫০০ টাকা কেটে রাখা হবে। আগে কেটে রাখা হতো এক হাজার ৫০০ টাকা।

এক থেকে পাঁচ কোটি টাকা হিসাবে থাকলে ১২ হাজার টাকা কেটে রাখা হবে। এসব হিসাব থেকে আগে কেটে রাখা হত সাড়ে সাত হাজার টাকা। পাঁচ কোটি টাকার বেশির ক্ষেত্রে কেটে রাখা হবে ২৫ হাজার টাকা, যা আগে ছিল ১৫ হাজার টাকা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •