ইমাম খাইর, সিবিএন

কক্সবাজার শহরের পানবাজার সড়কস্থ পপুলার মেট্রেস হাউজে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার ভোর রাত ৩টার দিকে আগুনের সুত্রপাত হয়। এতে ১২ লাখ টাকার অধিক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে ক্ষতিগ্রস্তরা।

তবে, ঘটনার পরপরই এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ছুটে আসায় বড় ধরণের ঘটনা থেকে রেহায় পেয়েছে অন্যান্য দোকানপাটসমূহ। অগ্নিকান্ডের সঠিক সুত্রপাত জানা না গেলেও বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

পপুলার মেট্রেস ছাড়াও মার্কেটের মালিক ছৈয়দ আহমদের অফিসের আনুমানিক ২ লাখ টাকা এবং দর্জিঘরের ৫০ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। অগুনের ছোয়া লেগেছে পাশ্বর্তী হারুন সুজের দোকানঘরে।

ক্ষতিগ্রস্ত পপুলার মেট্রেস হাউজের মালিক আবদুন নুর জানান, একটু আগে তারা দোকান বন্ধ করে সেহেরী খেতে বাসায় যায়। আকষ্মিক অগ্নিকান্ডে তার অপূরণীয় ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তিনি জানান, আগামী ঈদের জন্য মাত্র একদিন আগে গুদামে মালামাল মজুত করা হয়। হঠাৎ অগ্নিকান্ডে তার অন্তত ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

দোকানের কর্মচারীরা জানায়, রাত ২টার দিকে তারা দোকান ও গুদামঘর বন্ধ করে সেহেরী খেতে যায়। হঠাৎ অগুনের খবর পেয়ে তারা এসে দেখে গুদাম ঘরে থেকে ধোয়া বের হচ্ছে।

তারা জানায়, আগুনে ২০০টি বেড়, ৫০টি সুপার ফোমসেট, কয়েল মেট্রেস ১১টি, জাজিম ১৫টি, বালিশ ৫০০টি, সুপার কুসুম ২০০টি, কাপড়ের থান ১০০টি, সেলাই মেশিন ৩টি, ফোম ১০০টি, ব্যান্ডফোম ২৫০টি, ভেলবেট রোল ২৪টি বেবি সেট ১০০টি পুড়ে গেছে।

এছাড়া আরো মূল্যবান সামগ্রী পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

কক্সবাজার ব্যবসায়ী দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আমিনুল ইসলাম মুকুল জানান, সেহেরীর সময়েই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটায় বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতি থেকে এলাকাবাসী রেহায় পেয়েছে। এ সময় সবাই জাগ্রত ছিল। তিনি জানান, অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী দোকানদারসহ এলাকাবাসী ছুটে আসে।

ফায়ার সার্ভিস কক্সবাজার এর উপ-পরিচালক মো. আবদুল মালেক জানান, অগ্নিকান্ডের খবর পাওয়ার সাথে অগ্নিনির্বাপনকর্মীরা ছুটে যান। অল্প সময়েই এলাকাবাসীর সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। ঘটনায় প্রাথমিকভাবে সাড়ে ১২ লাখ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দোকানদাররা জানায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •