হুমকিতে কুতুবদিয়া বায়ুবিদ্যুত প্রকল্প

ইমাম খাইর, সিবিএন
প্রাকৃতিক দূর্যোগ আর অব্যবস্থাপনায় হুমকিতে পড়েছে কুতুবদিয়ার বায়ুবিদ্যুত প্রকল্প। জোয়ারের পানির ধাক্কায় ৩ কিলোমিটারব্যাপী প্রকল্পের প্রতিটি পিলারের গুড়া থেকে মাটি সরে যাচ্ছে। বেড়িবাঁধ ভেঙে বিলীন হয়ে যাচ্ছে প্রকল্পভুক্ত জায়গা। ইতিমধ্যে ১৫টিরও বেশী খুটির পাখা অচল হয়ে গেছে। থেমে আছে সংস্কার কাজ।
তবে, কুতুবদিয়া-পেকুয়া-চকরিয়া এলাকায় দায়িত্বে থাকা পানি উন্নয়নবোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী (বান্দরবান) শফিকুল ইসলাম শেখ সিবিএনকে জানান, পুরো দ্বীপে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ সংস্কারের জন্য ৯২ কোটি টাকার সংশোধিত প্রকল্প অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। বায়ুবিদ্যুত এলাকার ৪ কিলোমিটার জায়গা জিও ব্যাগ স্থাপনের জন্য ১ কোটি ২০ লাখ টাকার প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায়। বরাদ্দ পেলে কাজ শুরু করা হবে।
সুত্র জানায়, দেশের সর্বগ্রথম বায়ুবিদ্যুত প্রকল্পটি ২০০৬ সালে কুতুবদিয়া উপজেলার আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী বেড়িবাঁধের গা ঘেঁসে সমুদ্রসৈকতে দৃষ্টিনন্দন স্থানে স্থাপিত হয়।
১০০০ কিলোওয়াট বায়ুবিদ্যুত উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন প্রকল্পটিতে ৫০টি পিলার সদৃশ্য টাওয়ার রয়েছে। প্রতিটি টাওয়ারে মটরের সাহায্যে পাখা ঘুরানোর মাধ্যমে ৫০টি ব্যাটারিতে বিদ্যুত সঞ্চয় করা হয়। ব্যাটারি থেকে লাইনের মাধ্যমে গ্রাহকের মাঝে বিদ্যুত বিতরণ করা হয়।
প্রকল্পটি থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্নভাবে দৈনিক ৬ ঘন্টা করে বিদ্যুত সরবরাহ করা হতো। চাহিদার ৭ মেগাওয়াটের মধ্যে এখান থেকেই সরবরাহ করা হতো ২ মেগাওয়াট। দ্বীপের প্রায় ৭০০ পরিবার বিদ্যুৎ সুবিধা পেতেন। প্রকল্পটির যন্ত্রপাতি যথোপযুক্ত মানসম্মত না হওয়ায় ২০১০ সাল থেকে প্রকল্পটি থেকে বিদ্যুত উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। গত ফেব্রুয়ারিতে চালু হলেও আবার বন্ধ হয়ে আছে কেন্দ্রটি। দূর থেকেই বোঝা যায়, অনেক পাখা ভেঙ্গে গেছে। দেশের বিদ্যুৎ খাতে প্রতি বছর অঢেল অর্থ ব্যয় হয়। তার কিছু এখানে কার্যকর ভাবে ব্যয় করা গেলে দ্বীপটির অধিবাসীরা কিছুটা স্বস্তি পেতেন।
প্রকল্পটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেঁসে গড়ে ওঠা দ্বীপ কুতুবদিয়াকে পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে গড়ে তোলার স্বপ্ন নিয়ে অনেকেই বুক বেঁধেছিলেন। কিন্তু দুর্বল ও নিচু বেড়িবাঁধ অল্প সময়ের মধ্যে বিলীন হয়ে যাওয়ায় পূনরায় বেড়িবাঁধের প্রয়োজন হয়ে পড়ে। পানি উন্নয়ন বোর্ড পরবর্তীতে বেড়িবাঁধ তৈরির উদ্যোগ নিলেওএ কাজটি অস¤পূর্ন থেকে যাওয়ায় বিদ্যুত প্রকল্পটি ঝুঁকির মুখে রয়েছে- এমনটি জানান স্থানীয়রা।
দ্বীপের বাসিন্দারা জানান, যে প্রকল্পটি আলী আকবর ডেইল থেকে গোটা কুতুবদিয়ায় বিদুতের মাধ্যমে আলোকিত করার স্বপ্ন পূরণ করার কথা ছিল, সেটি আজ হুমকির মুখে। স্বপ্ন ভেঙ্গে যেতে বসেছে এলাকার মানুষের।
কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম নুরুল বশর চৌধুরী সিবিএনকে জানান, আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের কাহারপাড়া থেকে দক্ষিণে বায়ু বিদ্যুত ভায়া তাবালরচর পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত অবস্থায় রয়েছে। ভাঙা অংশ দিয়ে পুরো এলাকায় জোয়ারের পানি ঢুকছে।
তিনি বলেন, বেড়িবাঁধের বর্তমান অবস্থানের উপর বালিভর্তি জিও ব্যাগ স্থাপন করে বেড়িবাঁধের উচ্চতা বাড়ানো প্রয়োজন। অন্যথায় বায়ুবিদ্যুত প্রকল্পের অস্থিত্ব নিয়ে আশংকা রয়েছে।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

ঈদগাঁও থেকে দোকানদার অপহরণঃ ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী!

‘হিংসাবিহীন মানুষ পাওয়া কঠিন’

যখন দশম শ্রেণির ছাত্রী এই সময়ের পিয়া

উখিয়ায় অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন এসিল্যান্ড একরামুল ছিদ্দিক

কক্সবাজার শহরে বেড়েই চলছে চুরি ছিনতাই

হোটেল সী-গালের সংবর্ধনায় সিক্ত মেয়র মুজিবুর রহমান

বর্জ্য অপসারণে আরো একটি গাড়ি সংযোজন করলেন মেয়র মুজিব

মদ পানের অভিযোগে প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটের ক্রু বহিষ্কার

এই জনপদটি ইয়াবা নামক বিষ বৃক্ষের আবক্ষে নিম্মজ্জিত : সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন

যুগ্মসচিব হলেন কক্সবাজারের সন্তান শফিউল আজিম : অভিনন্দন

ধর্মীয় শিক্ষা মানুষের মাঝে মূলবোধের সৃষ্টি করে-এমপি কমল

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের অভিযানে ১৪জন আসামী গ্রেফতার

কক্সবাজার জেলা পুলিশকে আইসিআরসির ২৫০ বডি ব্যাগ হস্তান্তর

চকরিয়ায় পল্লীবিদ্যুতের ভুতুড়ে জরিমানা নিয়ে আতঙ্ক!

ঈদগাঁওয়ে পাহাড় কাটার দায়ে এক নারীকে ১ বছর কারাদন্ড

শুধু চালককে অভিযুক্ত করে লাভ নেই আমাদেরও সচেতন হতে হবে-ইলিয়াছ কাঞ্চন

মাওলানা সিরাজুল্লাহর মৃত্যুতে জেলা জামায়াতের শোক

কক্সবাজারের ৩দিন ব্যাপী ‘প্রাথমিক চক্ষু পরিচর্যা’ কর্মশালার উদ্বোধন

‘ঘরের ছেলে’র বিদায়ে ব্যথিত পেকুয়াবাসী

শিল্পী ফাহমিদা গ্রেফতার : জামিনে মুক্ত