নিজস্ব প্রতিবেদক:
মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক কালালিয়া কাটার জালছিরা ঘোনা সংলগ্ন এলাকা থেকে অস্ত্রের মুখে প্রায় লক্ষাধিক টাকার বাগদা, চাকা ও লইল্যা চিংড়ি লুট করেছে সন্ত্রাসীরা। ১২ জুন ভোররাতে জালছিরা ঘোনার পূর্বপাশে বালুরডেইলে এ ঘটনা ঘটে। এতে বাধা দিতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের মারধরে গুরুতর আহত হয়েছে ঘোনার শ্রমিক হেলাল উদ্দীন। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কালালিয়া কাটার চিংড়ি ঘোনা ব্যবসায়ীয় আবু তালেবের ইজারাধীন স্থানীয় মাইদ্যাঘোনা থেকে চিংড়ি নিয়ে কূলে আসছিল ঘোনার শ্রমিক হেলাল উদ্দীন। পথিমধ্যে জালাছিরা ঘোনার পূর্বপাশে বালুডেইলে পৌঁছলে ওৎপেতে থাকা স্থানীয় কালালিয়া কাটার খলিলুর রহমানের পুত্র রাসেল, হায়দার আলীর পুত্র রিয়াজ উদ্দীন, ইসহাক মিয়ার পুত্র রাহমত আলী ও ছালামত উল্লাহ, শামসুল আলমের পুত্র গিয়াস উদ্দীন, আবদু শুক্কুরের পুত্র শেফায়েত উল্লাহসহ একদল সন্ত্রাসী অস্ত্রের মুখে চিংড়িমাছ গুলো লুট করে। এসময় বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা শ্রমিক হেলাল উদ্দীনকে বন্দুক ও হাতুড়ি দিয়ে বেড়ধক পেটায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হয় তিনি। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অন্যদিকে সন্ত্রাসীরা চিংড়ি লুটের ঘটনায় মামলা বা কোন ধরণের বাড়াবাড়ি করলে পরিণতি খারাপ হবে বলে হুমকি দিয়ে গেছে।
ঘোনার মালিক আবু তালেব জানান, তিনি নিয়ম মাফিক ডাকের মাধ্যমে ন্যায্য মূল্যে মাইদ্যাঘোনাটি ইজারা নিয়েছেন। ইজারা নিয়ে ঘোনাটি পোনা দিয়ে মাছ আবাদ করেছেন। মৌসুমের শুরুতে চিংড়িমাছ ধরা পড়েছে। এই মাছগুলো আনার পথে সন্ত্রাসীরা লুট করে নিয়ে গেছে। এই ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •