সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
দেশ বর্তমানে ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। দেশের মানুষের পিঠ আজ দেয়ালে ঠেকে গেছে। সরকার ১০টাকার চাল খাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। কিন্তু বর্তমানে সেই মোটা চাল ৬০ টাকা কিনতে হচ্ছে। মানুষ গোমরে কাঁদছে ও মরছে। সেদিকে কারো খেয়াল নেই। উন্নয়নের নামে লুটপাটের মহোৎসব চলছে। এই অবস্থায় জাতীয়তাবাদী-ইসলামী মূল্যবোধ শক্তিকে এক কাতারে এসে স্বৈরাচারি সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। ১১ জুন সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজারের ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

বক্তারা আরো বলেন, সরকারের প্রতি মানুষের আস্থা ওঠে গেছে। পরিবর্তিত পরিস্থিতির অপেক্ষায় দেশের জগণ। সরকারের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে সংবাদকর্মীদের সত্যনিষ্ট লিখনি অব্যাহত রাখতে হবে। কারণে, দেশের মানুষের শেষ আস্থা ও ভরতার ঠিকানা সাংবাদিকরা।

সংগঠনের সভাপতি মুহম্মদ নূরুল ইসলামে সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হাসানুর রশীদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাবেক হুইপ ও সাংসদ জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী, কেন্দ্রীয় বিএনপির মৎস্যজীবি বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সাংসদ লুৎফুর রহমান কাজল, জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিএম রহীমুল্লাহ, সিনিয়র সাংবাদিক কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আতহার ইকবাল, কক্সবাজার প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজার প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য প্রবীন সাংবাদিক আমিনুল হক চৌধুরী, দৈনিক ইনকিলাবের বিশেষ সংবাদদাতা শামসুল হক শারেক, নয়া দিগন্তের কক্সবাজার প্রতিনিধি জিএএম আশেক উল্লাহ।

জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী আরো বলেন, বিশ্বের কোথাও কোন অপশক্তি দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। এই সরকারের পতনও অনিবার্য। তাই কলম সৈনিকদের ভেতরের খবর উম্মোচন করে বস্তুনিষ্ট সংবাদ প্রকাশ করাতে হবে।

কেন্দ্রীয় বিএনপির মৎস্যজীবি বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সাংসদ লুৎফুর রহমান কাজল বলেন, এই সরকার সব খাতকে ধ্বংস করেছে। সংবাদপত্র, বিচার বিভাগ, আইনের শাসন ও গণতন্ত্র বলতে কিছুই নেই। দেশের মানুষ আজ আতংক নিয়ে চলাফেরা করছে। কখন গুম বা হত্যার শিকার হবে তা নিশ্চিত নয়। তাই এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। এ ক্ষেত্রে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সবাইকে ধর্য্য ধরে কাজ করতে হবে। মানুষ এখন পরিবর্তন চাই। তাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আন্দোলন করতে হবে। শীঘ্রই দেশের সুদিন ফিরবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রবীন সাংবাদিক মমতাজ উদ্দিন বাহারী, জাকের উল্লাহ চকোরী, আবদুল মোনায়েম খান, কামাল হোসেন আজাদ, ইকরাম চৌধুরী টিপু, মোহাম্মদ হাসিম, আনছার হোসেন, রুহুল কাদের বাবুল, এম আর মাহবুব, গোলাম আজম খান, ইমাম খাইরসহ নবীন প্রবীন সাংবাদিকবৃন্দ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •