ডেস্ক নিউজ:

রাজধানীর তুরাগ থানাধীন কামারপাড়ার কালিয়ারটেক এলাকার একটি বাসার ভেতর থেকে তিন সন্তানসহ এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টায় ওই বাসা থেকে লাশগুলো উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।
তুরাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবে-ই-খোদা বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড কিনা তা এখনও নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি।
নিহতরা হলেন- রেহেনা পারভীন (৪০), তার বড় মেয়ে শান্তা (১৩), ছোট মেয়ে শেফা (৮) ও আট মাসের ছেলে সাদ।
তাদের বাবার নাম মোস্তফা কামাল।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার সময় মোস্তফা কামাল বাসায় ছিলেন না বলে পুলিশের কাছে দাবি করেছেন।

নিহত নারীর স্বামীকে উদ্ধৃত করে ওসি মাহবুবে-ই-খোদা বলেন, ‘মোস্তফা কামাল ওই এলাকায় একটা সমিতির ব্যবসা করেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭ টার দিকে তিনি বাসা থেকে বের হয়ে যান। রাত সোয়া ১২ টার দিকে ফিরে বাসা অন্ধকার দেখতে পান। এরপর দরজা খুলে তিনি দেখতে পান স্ত্রী ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে, বড় মেয়ের হাত-পা বাঁধা। তিন সন্তানের লাশ খাটের ওপর পরে আছে। তার আর্ত চিৎকারে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে সঙ্গে সঙ্গে আমরা (পুলিশ) আসি।’
এটা হত্যাকাণ্ড নাকি আত্মহত্যা-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এখনই কিছু বোঝা যাচ্ছে না। লাশের ময়নাতদন্ত হলে জানা যাবে। আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠাচ্ছি।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •