cbn  

 

আব্দুল মালেক, সেন্টমার্টিন

সেন্টমার্টিন দ্বীপের নারিকেল জিঞ্জিরায় ঘূর্ণিঝড় মোরা ‘য়  ক্ষতিগ্রস্থ দুইশত পরিবারের মধ্যে আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ইচ্ছেকুঁড়ি ফাউন্ডেশন নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ।

প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে প্রচুর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমিখ্যাত সেন্টমার্টিন ।  ঘরে খাবার নেই, ঘরের চাল নাই, অনেক গাছ ভেঙ্গে পড়েছে  । অসহায় হয়ে পড়েছে এখানকার মানুষগুলো ।

সরকারের সহযোগিতায়  খাবার সংকট কাটিয়ে উঠতে পারলেও  খোলা আকাশের নিচে দুর্নিবার কষ্টে থাকতে হচ্ছে অনেককে।  অনেকে কোনোমতো মাথা গুঁজে থাকছে ।

মানবেতর জীবনযাপন করা এই অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছে ইচ্ছেকুঁড়ি ফাইন্ডেশন । সংগঠনের পক্ষ থেকে রোববার বিকেলে তাদের কাছে অার্থিক সাহায্য প্রদান করা হয় ।
আর্থিক সাহায্য পেয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত দ্বীপের মানুষগুলো । তারা সংগঠনের সবাইকে অনেক কৃতজ্ঞতা জানান ।

সংগঠনটির সাথে মিলে কাজ করে  অসহায় মানুষগুলোর মুখে হাসি ফুটিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাহন এবং Youth Against Hunger, Institute of Leather Engineering & Technology নামের দুটি সংগঠন ।

মেডিকেল, বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজ ছাত্রদের অংশগ্রহণে  সংগঠনটি পথশিশু এবং সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ।  জাতীয় বিভিন্ন দূর্যোগ সংগঠনটি অসহায় মানুষকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছে এবং পথশিশু এবং সুবিধাবঞ্চিতদের নিয়ে কাজ করছে নিয়মিত ।
ইচ্ছেকুঁড়ি ফাউন্ডেশনের সভাপতি ইখতিয়ার জাহান সবুজ বলেন,  “সংগঠনের পক্ষ থেকে সেন্টমার্টিনের মানুষগুলোর জন্য কিছু করতে পেরে খুবই ভালো লাগছে । আরো বেশি কিছু করতে পারলে আরো ভালো লাগতো  ।  কৃতজ্ঞতা সবাইকে যারা পাশে থেকে সব সময় অনুপ্রেরণা দিয়ে যাচ্ছেন । এভাবেই অসহায় মানুষ আর আমার দেশের পাশে থাকবে ইচ্ছেকুঁড়ি ফাউন্ডেশন ।   “

ইচ্ছেকুঁড়ি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সুমন হুসাইন অন্যান্য সংগঠনকেও ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •