সেন্টমার্টিন-সাবরাং-এ কোস্ট ট্রাস্টের ত্রান সামগ্রী এবং নগদ আর্থিক সহায়তা

Coasr-Pic.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
ঘূর্ণিঝড় মোরার কারনে কক্সবাজার জেলার অন্যান্য উপজেলার তুলনায় টেকনাফ উপজেলার সেন্টমার্টিন এবং সাবরাং ইউনিয়নে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শাহপরীর দ্বীপে বেড়িঁবাধ অরক্ষিত হওয়ার কারনে জোয়ারের পানিতে এলাকা তলিয়ে গেছে। এই দুইটি ইউনিয়নে বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট দেখা দিয়েছে প্রখর ভাবে।
ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী ৩১ শে মে হতে এই দুইটি ইউনিয়নে কোস্ট ট্রাস্ট বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ করার লক্ষ্যে দুইটি ফিউরি ফাইড মেশিন দিয়ে ঘন্টায় ১ হাজার লিটার বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করে যাচ্ছে স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে। যার ফলে এলাকার মানুষের বিশুদ্ধ খাবার পানির সমাস্যা কিছুটা হলে লাঘব হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
ঘূর্ণিঝড় মোরায় ক্ষতিগ্রস্ত টেকনাফের সেন্টমার্টিনের দুইশত পরিবারের মাঝে শুক্রবার খাদ্য দ্রব্য বিতরণ করেছে কোস্টট্রাস্ট। খাদ্য দ্রব্যের মধ্যে ছিল ১০ কেজি চাল, ১লিটার সয়াবিন তেল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি চিনি এবং ১ কেজি পিয়াঁজ।
ত্রান বিতরণ পরবর্তী কোস্ট ট্রাস্টের ত্রান টিম সাবরাং ইউনিয়নে ৭৫ জন ক্ষতিগ্রস্থ পান চাষীকে নগদে ২০০০ টাকা করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।
ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিল স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ, সেন্টমার্টিন নৌবাহিনীর উধ্বর্তন কর্মকর্তা ও সেন্টমার্টিন ইউপি সদস্যবৃন্দ।
কোস্ট ট্রাস্টের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিল কোস্ট ট্রাস্ট কেন্দ্রীয় অফিসের সহকারী পরিচালক তারেক সাঈদ হারুন, সহকারী পরিচালক শওকত আলী টুটুল, এবং কোস্ট ক্ষুদ্র ঋণের কক্সবাজার আঞ্চলিক কর্মসূচি সমন্বয়কারী মো:আলম, প্রকল্প কর্মকর্তা শাহিনুর ইসলাম প্রমুখ।
এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের রাতে কক্সবাজার পৌরপ্রিপ্যারেটরী উচ্চ বিদ্যালয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নেওয়া লোকজনের মাঝে ৩৫০ লিটার বিশুদ্ধ খাবার পানি এবং ৩৫০ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করে কোস্ট ট্রাস্ট। ঘূর্ণিঝড় মোরা’য় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষকে পর্যায়ক্রমে সহযোগীতা করা হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

Top