সেন্টমার্টিনে খাবার ও বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট

জসিম মাহমুদ, টেকনাফ

ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’ বাংলাদেশ উপকূলের আরও কাছাকাছি চলে এসেছে। এ অবস্থায় কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার সেন্টমার্টিন দ্বীপের প্রায় ৮ হাজার মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। পুরো দ্বীপেই খাবার ও বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। দ্বীপের ১০ শয্যার একটি হাসপাতালে প্রায় ১ হাজার ২০০ মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। সেখানে খাবার ও বিশুদ্ধ পানির কোনো ব্যবস্থাই নেই। চরম দুর্ভোগে পড়েছে আশ্রয় নেওয়া এসব মানুষ।

সেন্টমার্টিন বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাফেজ ওয়াসিম সোমবার গভীর রাতে প্রথম আলোকে বলেন, দ্বীপের একমাত্র সাইক্লোন সেন্টারটি জরাজীর্ণ। তাই ১০ শয্যার হাসপাতালে ১ হাজার ২০০ মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। এ ছাড়া দ্বীপের সেনচুর, অবকাশ, ব্লু মেরিন হোটেল, জেলা পরিষদ ডাকবাংলো ও আবহাওয়া অফিসে ৪-৫ হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। তবে সরকারি হাসপাতালটিতে খাবার ও বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা না থাকায় আশ্রয় নেওয়া এসব মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক আলী আকবর (৯০) বলেন, ‘হঠাৎ করে ৭ নম্বর থেকে ১০ নম্বর মহা বিপৎসংকেত দেখা দেওয়ায় দ্বীপের মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। আমার এই বয়সে কোনো সময় আমি এমন পরিস্থিতির শিকার হইনি। এখন জীবনের মায়ায় নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছি দ্বীপের জেলা পরিষদের ডাকবাংলোতে। পরিবার-পরিজন, এলাকাবাসীসহ প্রায় ৩০০ মানুষ এখানে আশ্রয় নিয়েছি।’টেকনাফ উপজেলার সেন্টমার্টিন দ্বীপে জেলা পরিষদ ডাকবাংলোর মেঝেতে ঘুমিয়ে পড়েছে আশ্রয় নেওয়া শিশুরা। এখানে খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট রয়েছে।

সোমবার দিবাগত রাতে সরেজমিনে দেখা গেছে, আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে আসা মানুষের চোখে-মুখে অসহায়ত্বের ছাপ। শিশু-কিশোরেরা ভয়ে কান্নাকাটি করছে। আশ্রয় নেওয়া অনেকের কাছেই খাবার নেই। বিশুদ্ধ পানিরও যথেষ্ট সংকট রয়েছে।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য হাবিবুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, সোমবার রাত ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত সেন্টমার্টিনে থেমে থেমে বৃষ্টি হয়েছে। দমকা হাওয়ায় কিছু গাছপালা ভেঙে পড়েছে। এতে বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কি না, বিদ্যুৎ না থাকায় তার খবর নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। দ্বীপের চারদিকে কোনো ধরনের বেড়িবাঁধ না থাকায় মানুষ বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

হাবিবুর রহমান আরও বলেন, ‘এখন চারদিকে শুধু বাতাসের শব্দ শোনা যাচ্ছে। সোমবার সকাল থেকেই টেকনাফের সঙ্গে সেন্টমার্টিনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এই দ্বীপে বসবাসরত লোকজনের জন্য খাবার ও বিশুদ্ধ পানি টেকনাফ থেকে আনতে হয়। হঠাৎ করে সিগন্যাল (বিপৎসংকেত) হওয়ায় তা অনেকে মজুত করতে পারেননি। তাই এখানে খাদ্যের চরম সংকট দেখা দিয়েছে।’

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফে অভিযানেও থামছে না ৩ ভাইয়ের ইয়াবা বানিজ্য

পেকুয়ায় চাঁদার দাবীতে দোকান সংস্কারে বাধা ও ভাংচুর

গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের সহযোগিতা চেয়েছেন মেয়র মুজিবুর রহমান

চকরিয়ায় সুরাজপুর আলোকশিখা পাঠাগার’র চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা পুরস্কার বিতরণ ও গুণীশিক্ষক সংবর্ধনা

কক্সবাজার ক্রীড়া লেখক সমিতির কমিটি গঠিত

সাংবাদিক বশিরের মাতার জানাযা সম্পন্ন বিভিন্নমহলের শোক

বিজিবি ক্যাম্প এলাকায় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন

টেকনাফ সাংবাদিক ফোরাম’র আহবায়ক কমিটি গঠিত

কক্সবাজার-৩ আসনে বিএনপির মনোনয়নপত্র জমা দিলেন অধ্যাপক আজিজ

“দুখরে রোগে ও ভয় পায়!”

নিরাপদ জীবনে ফিরতে চায় ইয়াবা ব্যবসায়ীরা

রোববার থেকে বিএনপির সাক্ষাৎকার শুরু

মিয়ানমারে শতাধিক রোহিঙ্গা গ্রেফতার

বিএনপি নেতা আবু সুফিয়ান (চট্টগ্রাম-৮) আসনে মনোনয়নপত্র নিলেন

কক্সবাজার-২ আসনে কারাবন্দী আবুবকরের পক্ষে মনোনয়ন ফরম জমা

ঈদগাঁওতে ইউনিক পরিবহন ও টমটমের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৪

চবির ‘প্রফেসর’ পদোন্নতি পেলেন কক্সবাজারের হাসমত আলী

খুটাখালীর মহাসড়ক কিনারায় অবৈধ ভাসমান দোকানপাট উচ্ছেদ

চবিতে গণিত বিভাগের ২দিন ব্যাপী সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান শুরু

১৯দিন ব্যাপী চুনতির সীরত মাহফিল ১৯ নভেম্বর