ডেস্ক নিউজ:
সানাউল্লাহ মিয়া ঢাকা আইনজীবী সমিতির (ঢাকা বার) সাবেক সভাপতি। আদালত (ঢাকা জজ কোর্ট) পাড়ায় পরিচিত একটি মুখ। তবে তার পরিচিতির গণ্ডি এখন শুধু আদালত পাড়ায় সীমাবদ্ধ নেই। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মামলা পরিচালনা করেই তার পরিচিতি এখন দেশজুড়ে। শুধু চেয়ারপারসনের মামলা নয়; বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদেরও মামলা তিনি পরিচালনা করে থাকেন। এজন্য রাজনৈতিক মহলে তিনি বিএনপি আইনজীবী হিসেবেও পরিচিত। কারাবরণও করতে হয়েছে তাকে।
প্রবীণ এই আইনজীবী তার পেশাগত জীবনে প্রায় ২০ হাজারের বেশি মামলার শুনানিতে অংশ নিয়েছেন। ঢাকা বারের আইনজীবীদের ইতিহাসে যা সর্বোচ্চ রেকর্ড। তার সহকারী আইনজীবী ও শুভানুধায়ীরা মনে করেন এ কারণে সানাউল্লাহর নাম গ্রিনিস বুকে উঠা উচিত!
ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সানাউল্লাহ মিয়া পরিবর্তন ডটকমকে জানান, ৩২ বছরের ওকালতির জীবনে ২০ হাজারেরও বেশি মামলার শুনানি করেছেন। এরমধ্য ১০ হাজার মামলা ছিল লিগ্যাল এইড, দাতা সংস্থা ও দলীয় (বিএনপি) আইনজীবীদের। এসব মামলার শুনানিতে তিনি কোন ফি নেননি বলে দাবি করেন।
সানাউল্লাহ মিয়ার চেম্বারের জুনিয়র আইনজীবী জয়নুল অাবেদিন মেজবাহ পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, বতর্মানে চেম্বারে প্রায় ২ হাজার মামলা চলমান। স্যার চেম্বারের মামলা ছাড়াও প্রতিদিন অনেক দলীয় আইনজীবীদের মামলা শুনানি করে থাকেন। কোন কোন দিন স্যারের ৩০টির বেশি মামলা শুনানি করতে হয়।
তিনি অারো বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীদের নামে গত ১০ বছরে রেকর্ড সংখ্যক মামলা দিয়েছে পুলিশ। এসব মামলায় সারাক্ষণ ব্যস্ত থাকতে হয় স্যারকে। সব মিলিয়ে স্যার প্রায় ২০ হাজার মামলা শুনানি করেছেন।
সানাউল্লাহ মিয়ার জজ কোর্ট চেম্বারে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ১৫ জন জুনিয়র মামলার কাজে ব্যস্ত। এসব মামলার অধিকাংশই দলীয় নেতা-কর্মীদের।
ঢাকা বারের আইনজীবী অাবুল কালাম পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, এটা বলার অপেক্ষা রাখেনা ঢাকায় সবচেয়ে জনপ্রিয় আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া স্যার। তার নম্র ব্যবহারের কারণে তিনি বারের আইনজীবী ছাড়াও বিরোধীদলীয় আইনজীবীদের কাছেও্ জনপ্রিয়। বারের আইনজীবীরা তার কাছ থেকে যে অাইনী সুবিধা পান তা অন্য কোন আইনজীবীদের কাছ থেকে পান না। এজন্য তিনি অনন্য।
ঢাকা বারের আইনজীবী মাহবুব হাসান রানা জানান, সানাউল্লাহ মিয়ার মত আইনজীবী দু-একজনই হয়। সবাই চাইলে সানাউল্লাহ মিয়ার মত হতে পারবেন না। এটা অাসলে অাল্লাহ প্রদত্ত।
জাতীয়তাবাদী এ আইনজীবী দলীয় কার্যক্রমে সক্রিয় হওয়ার কারণে কয়েকবার কারাবরণও করেন। ২০১০ সালে ঢাকা আইনজীবী সমিতির কার্যকরী পরিষদের নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক ভোট পেয়ে সানাউল্লাহ মিয়া সভাপতি নির্বাচিত হন। দু-দুই বার বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •