মোঃ রেজাউল করিম, ঈদগাঁও, কক্সবাজার
বৃহত্তর ঈদগাঁওর বিরাজমান সমস্যা নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ সমূহ আয়োজিত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
২৪ মে রাতের সভায় উপস্থিত বিভিন্ন সেক্টরের প্রতিনিধিদের বক্তব্যে ওঠে আসে বাজারের ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিত্বশীল ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত না থাকায় চেয়ারম্যানদের নেয়া এ মহৎ উদ্যোগ ভেস্তে যাবার আশঙ্কার কথা।
বলা হয়, বাজারের কতিপয় স্বার্থান্বেষী ব্যবসায়ী ও মুনাফাখোর মালিক-শ্রমিকদের কারণে বাজারে উন্নয়ন হচ্ছেনা। অনুষ্ঠানে হাতে নিলে সফল হয়না। ক্ষেত্র বিশেষে আয়োজকদের জন্য তা হিতে বিপরীত হয়েছিল।
মূলতঃ আসন্ন পবিত্র রমজানে সম্মানিত রোজাদারদের ভোগান্তি লাঘবে বিদ্যুৎ বিভ্রাট, দ্রব্যমূল্য, যানজট, আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণসহ বিভিন্ন সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে স্থানীয় চেয়ারম্যান বৃন্দের আহবানে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বাজারের পাবলিক লাইব্রেরী চত্বরে অনুষ্ঠিত এ সভার সঞ্চালক ও মূল উদ্যোক্তা ছিলেন জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ।
বিদ্যমান সমস্যা ও তার সমাধান নিয়ে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান-২ সোহেল জাহান চৌধুরী, ঈদগাঁও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ছৈয়দ আলম, ইসলামাবাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো. নুর ছিদ্দিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার নুরুল আজিম, পোকখালী আ.লীগ সভাপতি মোজাহের আহমদ, ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ইনচার্জ মো. খায়রুজ্জামান, স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ বিলিং এরিয়া অফিসের এজিএম মো. মাসুদুর রহমান, জেলা যুবলীগ নেতা হুমায়ুন কবির হিমু, জালালাবাদ আ.লীগ সভাপতি সেলিম মোর্শেদ ফরাজী, ইসলামাবাদের মেম্বার সাইফুল ইসলাম, দিদারুল ইসলাম, কাফি আনোয়ার, সিএনজি সমিতির মোহাম্মদ আলম, টমটম সমিতির ছৈয়দ নুর, রিক্সা সমিতির প্রতিনিধি প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন পোকখালী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রফিক আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা ডা. শামসুল হুদা, শাহনেওয়াজ মিন্টু, নুরুল মোস্তফা, ওমর আলী মেম্বার, মেম্বার নুরুল আলম, মেম্বার আরমান উদ্দীন মোর্শেদ, মেম্বার নুরুল আবছার, মেম্বার মোক্তার আহমদ, মেম্বার আবু তাহের, মেম্বার মোফাচ্ছেল মুফি, মেম্বার সিরাজুল ইসলাম, সাংবাদিক মো. রেজাউল করিম, সাংবাদিক তারিকুল হাসান তারিক, এএসআই মহিউদ্দীন, বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি রায়হান আমিন। সোহেল জাহান চৌধুরী বলেন, বাজার সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে বিশেষ করে বড় বড় ব্যবসায়ীদের নিয়ে বৃহৎ পরিসরে বাজারের বিদ্যমান যানজট নিরসনের ব্যাপারে বৈঠকের আয়োজন করলে সুফল পাওয়া যেতে পারে। তিনি সভায় বাজারের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জনগণের কল্যাণে এসব উদ্যোগ নিলেও কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের অসহযোগিতায় বারবার তা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হচ্ছে। মাস্টার নুরুল আজিম বলেন, চলতি বছরে বিদ্যুতের নতুন লাইন ও গ্রাহক সৃষ্টি হলেও বৃহত্তর ঈদগাঁওবাসী ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। তিনি ইফতার, সেহেরী ও তারাবীহের সময় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবাহের দাবী জানান। মো. নুর ছিদ্দিক চলমান অসহনীয় লোডশেডিংয়ের জন্য স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের প্রতি চরম অসন্তোষ প্রকাশ করে পরিস্থিতির উত্তোরণে প্রয়োজনে জনতাকে সাথে নিয়ে আন্দোলনে নামার হুমকি দেন। ঈদগাঁও চেয়ারম্যান ছৈয়দ আলম বলেন, ডিসি রোড উম্মুক্ত রাখা ও সড়কে ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধে তিনি প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেবেন। হুমায়ুন কবির হিমু নবনির্মিত ডিসি সড়ক দখলমুক্ত করতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের আশু হস্তক্ষেপ দাবী করেন। অন্য বক্তারা তেলিপাড়া ব্রীজে টমটম নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা গ্রহণ, বাজারে পৃথক ৩ লাইনের ৩টি টমটম ঢোকার অনুমতি প্রদান, টমটম, সিএনজি ও রিক্সার লাইসেন্স গ্রহণ বাধ্যতামূলক করা, স্টেশন ও বঙ্কিম বাজারে ঢেঁকি কল স্থাপন, দৈনিক কমপক্ষে ২০ ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ, ডিসি রোডের ফুটপাত দখলমুক্ত করা, বাজারে আলাদা পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন, ফরাজী পাড়া ও বোয়ালখালী সড়কে পুলিশের নিয়মিত টহলের ব্যবস্থা করাসহ জনপ্রতিনিধি, পুলিশ প্রশাসন ও পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের সময়োচিত নানা পদক্ষেপ গ্রহণের জোর দাবী জানান। এতে মালবাহী ট্রাক ও অন্যান্য যানবাহন বাজারে প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ, এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের সার্বিক সহায়তা এবং নির্বাচিত প্রতিনিধি দ্বারা বাজার পরিচালনাসহ সংশ্লিষ্ট আনুষাঙ্গিক বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •