জসিম উদ্দিন টিপু,টেকনাফ:
টেকনাফে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে অপহরণের ঘটনায় পুরো স্কুল জুড়ে এখন আতংক বিরাজ করছে। জানাযায়,হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কাঞ্জরপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গত শনিবার দুপুরে স্থানীয় বখাটে কর্তৃক চতুর্থ শ্রেনীর এক ছাত্রী অপহরণের ঘটনা ঘটে। পরে সন্ধ্যার দিকে বখাটেরা লোক মারফত ঐছাত্রীকে স্কুলের নিকটবর্তী এলাকায় পৌঁছে দেয়। অপহরণের শিকার স্কুল ছাত্রী কেঁদে কেঁদে বলেন,স্কুলের টয়লেটে গেলে দুই জন লোক জোরপূর্বক আমাকে ধরে মুখে কাপড় বেঁধে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরে সন্ধ্যার দিকে একজন লোকের মাধ্যমে স্কুলের পাশের্^ পৌঁছে দেয়। ঐ ছাত্রীর বাবা নুরুল ইসলাম মুন্না জানান,স্কুল থেকে অপহরণের ৫ঘন্টা পর মেয়ে ফিরে আসলেও শিক্ষক এবং স্কুল কমিটির লোকজনের কাছ থেকে এই বিষয়ে এখনো পর্যন্ত কোন সহযোগীতা পায়নি। ভয়ে মেয়ে এখন আর স্কুলে যেতে চাচ্ছে না। অপর অভিভাবক মুফিজুল আলম জানান,শনিবারের ঘটনার পর থেকে পাহাড় পরিবেষ্টিত কাঞ্জরপাড়া স্কুলের পাঁচ শতাধিক ছাত্র/ছাত্রীর মাঝে আতংক বিরাজ করছে। অভিভাবকরা ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠাতে ভয় পাচ্ছে। স্কুল ছাত্রী শামীমুল হাসান রিয়াদ ও তাসফিয়া জাহান তন্নীসহ শত শত ছাত্র/ছাত্রী জানান,সেই দিনের ঘটনার পর থেকে স্কুলের টয়লেটে যেতে আমাদের বিষম ভয় হচ্ছে। তারা তাদের সহপাঠীকে অপহরণের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবী জানান। স্কুলের প্রধান শিক্ষককে মুঠোফোনে না পেয়ে স্বয়ং স্কুলে গিয়েও পাওয়া যায়নি। তবে সহকারী শিক্ষকরা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,স্কুলটি দুর্গম এলাকায় এবং অরক্ষিত হওয়ায় দু:খজনক এই ঘটনাটি ঘটেছে। স্থানীয় মেম্বার আব্দুল গাফফার অপহরণের বিষয়টি সত্য বলে জানায়। তবে তিনি বিষয়টি আরো খতিয়ে দেখে শিক্ষার স্বার্থে প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। জানতে চাইলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আশীষ বোস বলেন,আসলে বিষয়টি কেবল আপনার মারফত জানতে পারলাম। খতিয়ে দেখে তিনি এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •