মহানুভবতার উজ্জল দৃষ্টান্ত রেখে কাজ করে যাচ্ছেন মাওঃ আবদুর রহমান

মোহাম্মদ হোসেন,হাটহাজারী
পবিত্র সেবামূলক এক মহতি উদ্যোগ নিয়েছেন চট্টগ্রামের হাটহাজারী’র একটি সম্ভাব্য পরিবার। আলহাজ্ব শাহ ইয়ার মোহাম্মদ (রহঃ) এর তিন কৃতি সন্তান যথাক্রমে তাহসিনুল কোরআন ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও আল আমিন সংস্থার উপদেষ্টা মাওলানা ক্বারী আবদুর রহমান, এম.এ. করীম শাহ ও এম.এ. রহীম শাহ মিলে উপজেলার প্রায় অর্ধশত মসজিদ ও মাদ্রাসায় ওয়াটার কুলার ডিসপেন্সার, সিলিং ফ্যান, মাইকের মেশিন ও পানির ট্যাংক বিতরণ করেছেন।
উক্ত অনুষ্ঠানে শাহ ইয়ার মোহাম্মদ (রহঃ) ফাউন্ডেশন সচিব এম.এ. রহিম শাহ‘র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামি ঐক্যজোটের মহানগর সভাপতি মাওঃ মাঈনুদ্দীন রুহী। প্রধান আলোচক ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুব আলম চৌঃ। বিশেষ মেহমান ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওঃ নাছির উদ্দীন মুনির, বিশেষ অতিথি যথাক্রমে উপস্থিত ছিলেন মাওঃ মীর ইদ্রিস,মাওঃ জাহাঙ্গীর আলম মেহদী,চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি এড. শামীম,মাওঃ হাবীবুল হক বাবু,জসিম উদ্দীন সিকদার,ছাত্র নেতা মোঃ নাজিম উদ্দীন, মোঃ ফিরোজ,মোঃ সেলিম,সাজ্জাদ হোসেন,নুরুল হাসান এবং হাটহাজারীতে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

পবিত্র রমজান উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় সম্পূর্ণ ব্যক্তি উদ্যোগে এবারও উপজেলাধীন বিভিন্ন মসজিদ ও মাদ্রাসায় আলহাজ্ব শাহ ইয়ার মোহাম্মদ (রহঃ)এর সুযোগ্য তিন সšন ওয়াটার কুলার ডিসপেন্সার, সিমেন্ট, সিলিং ফ্যান, মাইকের মেশিন ও পানির ট্যাংক বিতরণ করেছেন। নিঃসন্দেহে এ ধরণের উদ্যোগ প্রশংসনীয়। এতে পবিত্র রমজানে তারাবীহ ও জামাতে শরীক হওয়া মুসল্লীদের অনেক স্বস্থিবোধ করবেন। পাশাপাশি মসজিদের জামাতে শরীক হওয়ার জন্য সাধারণ মুসলমানদের মধ্যে আরো অনেক মুসল্লীই উৎসাহবোধ করবেন। সমাজের মুসলিম ধনাঢ়্য ব্যক্তিরা এই ধরণের কর্মকান্ডে উৎসাহিত হয়ে তাদের হালাল উপার্জন থেকে সাধ্যমত ইসলামের খেদমত করতে এগিয়ে আসবে বলেও বক্তারা আশা প্রকাশ করেন।
আলহাজ্ব শাহ ইয়ার মোহাম্মদ (রহঃ) উদ্যোক্তা তিন ভাইয়ের পক্ষ থেকে এম.এ. রহীম শাহ বলেন,‘ প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমরা মসজিদ ও মাদ্রাসায় প্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করেছি। মূলত আমরা তিন ভাই আমাদের অর্জিত অর্থের অর্ধেক অংশ নিজেদের জন্য রাখি। বাকী অংশটুকু ইসলামের খেদমদ করার লক্ষে আল্লাহ্র রাস্তায় ব্যয় করি। লোক দেখানো নয় বরং আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্ঠায় উৎসাহী হয়ে সমাজের বিত্তশালীদের আরো অনেকেই ইসলামের খেদমতে এগিয়ে আসবে বলে মনে করি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •