ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুন রোগী জেলা সদর হাসপাতালে

ইমাম খাইর, সিবিএন
মাত্রাতিরিক্ত রোগী বেড়েছে জেলা সদর হাসপাতালে। কেবিন, সীট পেরিয়ে ফ্লোরেও রোগীদের ঠাঁসাঠাঁসি অবস্থান। আড়াইশ শয্যার হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বেড়ে এখন প্রায় সাড়ে ৫’শ। কমছেনা, বরং রোগীর সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন।
হাসপাতালে নেই পর্যাপ্ত ডাক্তার ও নার্স। ইনডোর আউটডোর মিলে রোগীদের চরম অবস্থা। যে কারণে রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
সুত্র জানায়, হাসপাতালে প্রয়োজন ৭২ জন ডাক্তার। আছে মাত্র ৫৩ জন। জরুরী বিভাগে ৭ জনের স্থলে দায়িত্ব পালন করছে মাত্র ২ জন। ১৩টি ওয়ার্ডে নার্স আছে শ’খানেক। সেখান থেকেও প্রায় ৩০ জন তদবির করে অন্যত্র চলে গেছেন। পরিস্কার পরিচ্ছনার অভাবে হাসপাতালের চারিদিকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। গত সপ্তাহ ধরে করুণ অবস্থা। হাসপাতাল সুপার ও আরএমও আন্তরিক হলেও বাকীরা দায়িত্ব পালনে উদাসীন। স্যুয়ারেজ লাইনের নোংরা পরিবেশে হাসপাতালে থাকা কষ্টকর। জোড়াতালি দিয়ে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, জরুরী বিভাগে যে দুইজন ডাক্তার রয়েছেন তারা ইনডোর আউডোর রোগী দেখার পাশাাপশি ময়নাতদন্তও করছেন। ফাঁকে ক্লাস নেন মেডিকেল ছাত্রদের। সব মিলিয়ে ডাক্তার সংকটে ভোগছে হাসপাতালের জরুরী বিভাগ।
সরেজমিন হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, নীচ তলা থেকে পঞ্চম তলা পর্যন্ত সীটের নীচে অনেক রোগী বেডবালিশ নিয়ে পড়ে আছে। প্রতি ফ্লোরে ওয়ার্ডের বাইরেও রোগীদের ঠাঁসাঠাঁসি অবস্থান। গরমে হাপাচ্ছে এসব রোগীরা। ওখানেই কোনমতে সেবা চালানো হচ্ছে। তবে, অতিরিক্ত রোগীর চাপে পর্যাপ্ত চিকিৎসাসেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষরা।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মোঃ শাহীন আবদুর রহমান চৌধুরী বলেন, গরম বেড়ে যাওয়ায় রোগীও বাড়ছে। ডাক্তার সমস্যা দীর্ঘদিনের। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট অনেকবার লিখা হয়েছে। তিনি বলেন, সমস্যা সমাধানের চেষ্টা অব্যাহত আছে।
সিভিল সার্জন ডা. পু চ নু বলেন, ধারণ ক্ষমতার চেয়ে রোগীর সংখ্যা বেশী-সেকথা ঠিক। এরপরও রোগীদের সেবা নিশ্চিত করতে আমরা সাধ্য মতো চেষ্টা করছি। প্রয়োজনীয় জনবল সংকটের কারণে অনেক সময় পেয়ে ওঠা সম্ভব হয়না। তবে, শীগ্রীই তা সমাধানের আশা করছেন সিভিল সার্জন।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফে ৭৫৫০টি ইয়াবাসহ দুইজন আটক

এলোমেলো রাজনীতির খোলামেলা আলোচনা

কক্সবাজারে হারিয়ে যাওয়া ব্যাগ ফিরে পেলেন পর্যটক

সুষ্ঠু নির্বাচনে জাতীয় ঐক্য

সঠিক কথা বলায় বিচারপতি সিনহাকে দেশত্যাগে বাধ্য করেছে সরকার : সুপ্রিম কোর্ট বার

সিনেমায় নাম লেখালেন কোহলি

যুক্তরাষ্ট্রের কথা শুনছে না মিয়ানমার

তানজানিয়ায় ফেরিডুবিতে নিহতের সংখ্যা শতাধিক

যশোরের বেনাপোল ঘিবা সীমান্তে পিস্তল,গুলি, ম্যাগাজিন ও গাঁজাসহ আটক-১

তরুণদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়াটা অনেক বেশি জরুরি- কক্সবাজারে মোস্তফা জব্বার

চলন্ত অটোরিকশায় বিদ্যুতের তার, দগ্ধ হয়ে নিহত ৪

খরুলিয়ায় বখাটেকে পুলিশে দিলো জনতা, রাম দা উদ্ধার

টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

সতীদাহ প্রথা: উপমহাদেশের ইতিহাসে কলঙ্কজনক অধ্যায়

খুরুশকুলে সন্ত্রাসী হামলায় কলেজ ছাত্র আহত

নুরুল আলম বহদ্দারের কবর জিয়ারত করলেন লুৎফুর রহমান কাজল

জীবনের প্রথম প্রচেষ্টাতে ঈর্ষনীয় সাফল্য মৌসুমীর

এলআইসিটি বেস্ট অ্যাওয়ার্ড পেলো চবি শিক্ষার্থী নিপুন

খরুলিয়ায় মাদকবিরোধী মতবিনিময় সভা

ঈদগাঁও-খুটাখালী থেকে দিনদুপুরে কাঠ পাচার!