মহেশখালী সংবাদদাতা:
আগামী ২৩ মে মহেশখালী উপজেলার বহুল আলোচিত কালারমারছড়া ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে শেষ মুর্হুতের বিরামহীন প্রচারনা চলছে। চারদিকে বিরাজ করছে উৎসব মুখর পরিবেশ। প্রার্থীরা জয়ের লক্ষে ধর্ণা দিচ্ছে ভোটারদের কাছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে অবাধ সুষ্ঠ নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষে নিরাপত্তার স্বার্থে কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরী করা হবে বলা জানিয়েছেন প্রশাসনের শীর্ষ স্থায়ি এক কর্মকতা। প্রয়োজনে গুলির নির্দেশ থাকবে বলে জানান এই কর্মকতা।
জানা গেছে, নৌকার প্রার্থী সেলিম চৌধুরী ও মোটর সাইকেল মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী তারেক বিন ওসমান শরীফ দুই প্রার্থী হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে শেষ মুর্হতে বিরামহীন প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে সততা ন্যায়পরায়নতা জনপ্রিয়তা ধরে রেখে জয়ের লক্ষে মরিয়া ধানের শীষ প্রার্থী আলহাজ্ব এখলাছুর রহমান। ধানের শীষের প্রার্থীর আকস্মিক দৌঁড়ে গা ঝাড়া দিয়ে উঠেছে অন্য প্রার্থীরা।
অপরদিকে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী সেলিম চৌধুরী বিশাল ভোট ব্যাংক ধরে রেখে বিজয় ছিনিয়ে আনতে জানবাজি রেখে লড়ছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী তারেক বিন ওসমান শরীফ জনপ্রিয়তা ধরে রেখে যে কোন মূল্যের বিনিময়ে কালারমারছড়া ইউপির মসনদ নিজের কব্জায় নিয়ে আনতে প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছেন এমন কথা শোনা যাচ্ছে ভোটারদের কাছে। কোউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ।
তবে দেখা যাক কে হচ্ছেন কালারমারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের কান্ডারী অপেক্ষা করতে হবে ২৩ মে রাত পর্যন্ত।
জানা গেছে, বহুল আলোচিত এ নির্বাচনকে সামনে রেখে জেলা বাসীর চোখ এখন কালারমারছড়ার দিকে। তবে এ নির্বাচন আদৌও সুষ্ঠ হবে কিনা শংকা রয়েছেন স্থানিয় বাসিন্দারা।
জেলা নির্বাচন অফিসার মোজাম্মেল হক বলেন, ভোট জালিয়াতী, ব্যালট চিনতাই, পেশী শক্তি প্রয়োগ করার সুযোগ নাই। তিনি কঠোর হস্তে দমন করা হবে বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •