৬ দিনেও স্বাভাবিক হয়ে ওঠেনি আহত স্কুল ছাত্রী নুর নাহার বেগম

ইমাম খাইর, সিবিএন:
স্কুলে যাওয়ার পথে বখাটেদের হামলার শিকার স্কুল ছাত্রী নুর নাহার বেগম এখনো স্বাভাবিক হয়ে ওঠেনি। স্বাভাবিক খাবার সম্পূর্ণ বন্ধ। কোন মতে জীবন বাঁচাতে লিকুইড (তরল খাবার) খাওয়ানো হচ্ছে তাকে। কথা বলছে ইশারায়।
সব মিলিয়ে নুর নাহার বেগমের অবস্থা ভাল নয়। তাকে নিয়ে স্বজনেরা উদ্বিগ্ন। হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মোঃ শাহীন আবদুর রহমান জানান, নুর নাহারের যথাযথ চিকিৎসা চলছে। সেরে ওঠতে একটু সময় লাগবে। তবে আশংকার কোন কারণ নেই।
বৃহস্পতিবার সকালে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নুর নাহার বেগমকে দেখতে গেলে সে দু’চোখের অশ্রু ঝরিয়ে দেয়।এ সময় সে প্রতিবেদককে ইশারায় তার আকুতির কথা জানাতে চেষ্টা করে। শত চেষ্টা, কোনমতেই বোঝাতে পারেনি মনের কথা। অঙ্গভঙ্গিমায় মনে হয়েছে- বখাটেদের বিচার দাবী করেছে নুর নাহার।
এ সময় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা তার অসহায় দিন মুজর বাবা আলী আকবর বলেন, আমার চোখে এখন শুধুই অন্ধকার। নুর নাহার বেগম আমার বড় মেয়ে। স্কুলে যাওয়ার পথে বখাটে মোঃ ইউনুছ ও জামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে হামলা হামলা করা হয়। আলী আকবর আরো বলেন, বখাটেরা শুধু আমার মেয়েকে নয়, বাড়ীতেও হামলা চালায়। লুট করে ঘরের মূল্যবান সম্পদ। মেয়ের উপর নৃশংস হামলার সুষ্ট বিচার দাবী করেন আলী আকবর। নুর নাহার বেগম উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং সোনারপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী।
গত ১৫ মে সকালে বড় ইনানী এলাকার মৃত শামসুল আলমের ছেলে মোঃ ইউনুছ ও কলিম উল্লাহ প্রকাশ কলিম্যা ডাকাতের ছেলে জামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল বখাটে স্কুল ছাত্রী নুর নাহার বেগমের উপ হামলা করে নাকের অংশ কেটে নেয়।
এ ঘটনায় আহতের পিতা আলী আকবর বাদী হয়ে ১৬ মে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
বিচারক সিরাজুল ইসলাম মামলাটি আমলে নিয়ে উখিয়া থানার ওসিকে এফআইআর হিসেবে গণ্য করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন।
মামলায় ঘটনার মূল নায়ক মোঃ ইউনুছ ও জামাল উদ্দিন ছাড়া আসামী করা হয় বড় ইনানী এলাকার মৃত মোহাম্মদ মিয়ার ছেলে কলিম উল্লাহ প্রকাশ ডাকাত কলিম্যা, মৃত শামসুল আলমের ছেলে মোঃ ইউসুফ, কলিম উল্লাহ প্রকাশ ডাকাত কলিম্যার ছেলে কামাল উদ্দিন, স্ত্রী জোবাইদা আক্তার, মৃত মোহাম্মদ মিয়ার ছেলে আবদুল করিম প্রকাশ ইয়াবা করিম, মৃত শামসুল আলমের স্ত্রী লায়লা বেগম এবং মৃত মোঃ গুরা মিয়ার মেয়ে সেলিনা আক্তার। মামলার এজাহারভুক্ত আসামী কামাল উদ্দিনকে ১৭ মে রাত ৯টার দিকে ইনানী মোহাম্মদ শফির বিল এলাকার একটি বাড়ী থেকে তাকে গ্রেফতার করে উখিয়া থানা পুলিশ।
উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের জানান, আদালতের নির্দেশে মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। ইতোমধ্যে এক আসামী গ্রেফতার করা হয়েছে। নৃশংস ঘটনার সাথে জড়িত সকল আসামীকে গ্রেফতার করা হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা।

সর্বশেষ সংবাদ

কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাচন স্থগিত করেছে হাইকোর্ট

নুরুল আবছারের প্রার্থীতা বাতিল করেছে হাইকোর্ট

বাঘাইছড়িতে ব্রাশ ফায়ারে হতাহতের ঘটনা তদন্তটিম মাঠে

ঘরের চেরাগেই ঘর জ্বালাবে!

ট্রাফিক পুলিশ ম্যানেজ করে শহরে ঢুকছে ভারী যানবাহন!

বদরখালী সমিতির সম্পাদক ইকবাল বদরী আর নেই : শুক্রবার ৩ টায় জানাজা

লামায় কৃষকদের সাথে সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের মতবিনিময়

নারী ও শিশু নির্ষাতন মামলায় রামুর তিন জনের ৫ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড

আজ বিশ্ব বন দিবস

সহকর্মীর গুলিতে কাশ্মীরে ভারতীয় তিন সেনার প্রাণহানি

আধা-স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে

বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন মোস্তাফিজ!

লড়াইয়ে জুয়েল-আবছার, ‘ফ্যাক্ট’ সেলিম আকবর?

ঈদগাঁওতে ‘কৃষকের বাজেট’ মনোমুগ্ধকর অনুষ্ঠান সম্পন্ন

চট্রগ্রামে টেম্পু থেকে পড়ে যাত্রীর মৃৃত্যু

মুনীর চৌধুরীকে জাদুঘরে বদলিতে ইয়েস’র উদ্বেগ, দুদকে ফিরিয়ে আনার দাবী

বাংলাদেশ লিবারেল এসোসিয়েশন এর সদর উপজেলা আহবায়ক কমিটি গঠিত

বাঘাইছড়িতে ব্রাশ ফায়ারে ২৯জন হতাহতের ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কাজ শুরু

Four Bangladeshi returned from Myanmar

পৌরসভায় বই মার্কা প্রার্থীর গণসংযোগ ও পথসভা