এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া

চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নে পুত্রবধুকে শ্লীলতাহানি চেষ্ঠার ঘটনা শুনে হার্টএ্যাটাকে শ^শুর রামানন্দ ঘোষের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার ভোরে ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম খয়রাতিপাড়া গ্রামে বাড়ির পাশে লাকড়ি কুড়াতে গেলে বখাটে কর্তৃক শ্লীলতাহানির এ ঘটনা ঘটেছে। বুধবার সকালে আহত ওই নারীকে চকরিয়া উপজেলা হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযোগে ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম খয়রাতিপাড়া গ্রামের নয়ন কান্তি দে জানান, মঙ্গলবার ভোরে কালবৈশাখী তান্ডবে বাড়ির গাছপালা ভেঙ্গে পড়ে। ভোর ছয়টার দিকে তাঁর স্ত্রী রনু রানী দে (২৫) ঘুম থেকে উঠে বাড়ি পাশে ভেঙ্গে পড়া লাকড়ি কুড়াতে যায়। এসময় প্রতিবেশি ধনঞ্জয় মোহন দে’র ছেলে বখাটে অমল কৃষ্ণ দে হঠাৎ সেখানে গিয়ে লাকড়ি কুড়ানো অবস্থায় রনু রানীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে।

নয়ন কান্তি দে অভিযোগ করেছেন, ঘটনার এক পর্যায়ে ধস্তাধস্তি করলে ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্ত বখাটে অমল তার স্ত্রীকে মারপিট করে। ঘটনার পর পর তিনি (স্বামী নয়ন) সহ পরিবার সদস্যরা এগিয়ে আসলে হামলাকারী বখাটে পালিয়ে যায়।

নয়ন কান্তি দে দাবি করেন, তার স্ত্রীকে (পুত্রবধুকে) শ্লীলতাহানি করার ঘটনাটি জানার পর বিকালে বাড়িতে হার্ট এ্যার্টাক করে মারা যান তার বাবা (রামানন্দ ঘোষ)। ঘটনাটি তাৎক্ষনিকভাবে স্থানীয় ইউপি মেম্বারকে জানানো হয়। এ ঘটনায় আদালতে আইনের আশ্রয় নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন আক্রান্ত নারীর স্বামী নয়ন কান্তি দে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •