হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
রামুর অরণ্যঘেরা পাহাড়ে সন্ত্রাসী আস্তানার সন্ধানে বিশেষ অভিযান আরম্ভ করেছে যৌথ বাহিনী। বুধবার (১৭মে) উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের মাঝিরকাটা, কচ্ছপিয়ার গিলাতলী ও ঈদগড় ইউনিয়নের ব্যাঙডেপা এলাকায় পৃথকভাবে অভিযান চালায় র‌্যাব এবং পুলিশের বিশেষ টিম। অভিযানে গিলাতলী এলাকা থেকে গিয়াস উদ্দিন নামে এক সন্ত্রাসী আটক হয়েছে। তবে স্থানীয়রা জানিয়েছেন-আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে অনেক শীর্ষ সন্ত্রাসী পালিয়ে যায়।
অভিযানে অংশ নেন র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের পরিচালক মেজর মো.রুহুল আমিন, কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল, গোলাম মো.রুহুল কুদ্দুস, ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মনিরুজ্জামান, গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক কাজি আরিফ উদ্দিন প্রমূখ কর্মকর্তাগণ।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুলের বরাত দিয়ে অভিযানে অংশ গ্রহনকারি গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) আহসান হাবিব বলেন, ‘সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের এই বিশেষ অভিযান চলমান থাকবে। রামুর পাহাড়ে কোন সন্ত্রাসী আস্তানা আছে কিনা সেটাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। অভিযান চলাকালে সন্ত্রাসীদের বাড়িতে রেইট দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু সন্ত্রাসীদের বাড়িতে পাওয়া যাচ্ছে না। গিলাতলী এলাকা থেকে গ্রেপ্তারকৃত গিয়াস উদ্দিন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার একাধিক মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি হওয়ায় তাঁকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •