সরকারের হেফাজতে ‘হেফাজত’!

বাংলাট্রিবিউন:
২০১৩ সালের ৫ মে। গোটা রাজধানী যেন একটি রণক্ষেত্র। আগুন জ্বলছে রাজধানীর বাইরেও। হেফাজতে ইসলামের কর্মীদের হামলা, ভাঙচুর, জ্বলাও-পোড়াও তাণ্ডবে বিস্মিত হয়ে পড়ে জাতি। একদিকে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবির মুহুর্মুহু গুলিতে কাঁপছে রাজধানী। অন্যদিকে হেফাজতের হুঙ্কারে কাঁপছিল সরকার।

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা মসনদে বসার পর কখনও এমন চ্যালেঞ্জে পড়তে হয়নি। বাধ্য হয়ে রাতে পরিচালিত হয় সাঁড়াশি অভিযান। সরকারি বাহিনীর কৌশলী অভিযানে পিঁছু হটল হেফাজত। হেফাজতের করা ঘোলা পানিতে যারা মাছ শিকার করতে চাইলেন, সে মাছ অধরাই রয়ে গেল।

এরপরের ঘটনা সবার জানা। হেফাজতের তাণ্ডব, সরকারের অবস্থান সবই যেন ইতিহাস! প্রায় জাদুঘরে গিয়ে ঠেকেছে হেফাজতের বিধ্বংসী কর্মকাণ্ড।

একসময় হেফাজত-সরকারের সম্পর্ক নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলেও তারা যে আজ পরমমিত্র, তা অনেকটাই পরিষ্কার। হেফাজত এখন সরকারের পথনির্দেশক! যে হেফাজতের কর্মকাণ্ডে বিব্রত ও সমালোচনামুখর ছিল সরকারের লোকেরা, সেই হেফাজত নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বিস্মিত হয়েছেন অনেকে।

হেফাজতের একসময়ের বন্ধু খালেদা জিয়া তাদের (ইসলামি দল) কওমী মাদরাসার স্বীকৃতির আবদার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। সেই আবদার লুফে নিলেন স্বাধীনতাযুদ্ধের সংগঠন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। এখানেই শেষ নয়। হেফাজতের সুরে সুর মিলিয়া প্রধানমন্ত্রী সুপ্রিম কোর্টের সামনে বসানো ভাস্কর্য তার পছন্দের নয় বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

প্রকাশ্যে সমালোচনা করলেও হেফাজতের আশীর্বাদ পেয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তুলছেন সরকারের মধ্যে থাকা বামপন্থি নেতারাও। সামনে নির্বাচন। গঙ্গার পানি গড়িয়েছে বহু দূর। হেফাজত ভয়ে মসনদের কাঁপুনি হয়তো আজও থামেনি। নির্বাচন ঘিরে হেফাজতের প্রতি সরকারের এ সখ্যতা বলে বিভিন্ন মহলের মত। নির্বাচন ঘিরেই বিএনপি-জামায়াতের কাছে ২০১৩ সালে কদর বেড়েছিল হেফাজতের। এবার কদর বেড়েছে আওয়ামী লীগের কাছে।

সরকারের নকশায় আর অনুগ্রহে থাকা ‘গণজাগরণ’ নামের সংগঠনের দেওয়ালের বিপরীত পিঠে জন্ম নেয়া ‘হেফাজত’ সরকারের এভাবে বন্ধুবনে যাবে, তা খোদ আওয়ামী লীগের মধ্যকার নেতাদেরও কেউ কেউ মানতে চাইছেন না।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এক সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, হেফাজত সরকারের কাছে এসেছে সুবিধা নিতে। দলটির আদর্শ ও নীতি সবই ১৯৭২ সালের সংবিধানের পরিপন্থি। আওয়ামী লীগ এভাবে হেফাজতের ফাঁদে পা দিলে আর রক্ষা পাবে না। সুযোগ পেলেই হেফাজত ডিগবাজি দেবে।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম এ প্রসঙ্গে বলেন, আওয়ামী লীগ যে সুবিধা নিতে হেফাজতের সঙ্গে আঁতাত করছে, তাতে আওয়ামী লীগের সর্বনাশ ডেকে আনবে। হেফাজত কোনোদিন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির বন্ধু হতে পারে না।

যদিও সম্প্রতি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘হেফাজতের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো সমঝোতা হয়নি।’

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘এ মুহূর্তে আওয়ামী লীগ ভোটের রাজনীতিতে আর কোনো দলকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করে না। ভোটের রাজনীতি নিয়ে হেফাজত বা ইসলামি দলগুলোর সঙ্গে কোনো প্রকার সমঝোতা হয়নি আমাদের। হেফাজতের চেতনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের চেতনা সম্পূর্ণ আলাদা।’

দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাকও প্রায় একই সুরে বলেন, ‘রাষ্ট্র ও সমাজব্যবস্থা এগিয়ে নিতে কওমী শিক্ষা ব্যবস্থাকে বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষায় সম্পৃক্তের চেষ্টা করছে সরকার। এখানে রাজনৈতিক সমঝোতার কোনো প্রশ্ন আসতে পারে না।’

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা ও ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘হেফাজতে ইসলাম সম্পূর্ণ একটি অরাজনৈতিক দল। সুতরাং রাজনৈতিক কোনো বিষয় নিয়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা হতে পারে না।’

বাংলাদেশ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দৃষ্টিতে যা কোরআন-সুন্নাহবিরোধী, তাই নিয়ে আন্দোলন করছি, সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি। সরকার আমাদের দাবি না মানলে ভবিষ্যতেও আন্দোলন করা হবে।’

সর্বশেষ সংবাদ

পুরান ঢাকার চকবাজারে আগুন, ৫৬ লাশ উদ্ধার

ভারুয়াখালীতে স্কুলছাত্রকে অপহরণের চেষ্টা  ‘ভাই গ্রুপের’

আজ আন্তর্জা‌তিক মাতৃভাষা দিবস

মুজিবুর রহমান ও এমপি জাফরের দোয়া নিলেন ফজলুল করিম সাঈদী

মাতৃভাষার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে রাখাইনদের নতুন প্রজন্ম

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চার মধ্য দিয়ে অপশক্তিকে রুখতে হবে- মেয়র মুজিব

একুশে ফেব্রুয়ারি : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা

টেকনাফে সাড়ে ১৫ লক্ষ টাকার স্বর্ণালংকার উদ্ধার

চকরিয়ায় শিশু ও নারী নির্যাতন মামলার ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

২০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজন আটক

এডভোকেট রানা দাশগুপ্তের সাথে কক্সবাজার জেলা নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব ও তাৎপর্য

ঈদগাঁওতে পুজা কমিটির সম্মেলন নিয়ে সংঘাতের আশংকা

কক্সবাজার সিটি কলেজে শিক্ষকদের জন্য আইসিটি প্রশিক্ষণ শুরু

উখিয়ায় হাতির আক্রমণে রোহিঙ্গা যুবকের মৃত্যু

এস আলম গ্রুপের ৩ হাজার ১৭০ কোটি টাকার কর মওকুফ

মালয়েশিয়ায় ভবনে আগুন : বাংলাদেশিসহ নিহত ৬

মহেশখালীতে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে মোস্তফা আনোয়ার

চকরিয়ায় ইয়াবাসহ দুই ব্যবসায়ী আটক

চকরিয়ার চেয়ারম্যান পদে ২ জনসহ ৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল