লামায় বন্যহাতির তান্ডবে ১৩ বসতঘর ও ফসল তছনছ

মো. নুরুল করিম আরমান, লামা:

বান্দরবানের লামা উপজেলায় বুনোহাতির দল তান্ডব চালিয়ে তছনছ করে দিয়েছে ১৩টি বসতঘর, বিপুল পরিমাণ জমির ধান ও ফলদ বাগান। শুধু তাই নয়, এ সময় হাতির দল কৃষকের ঘরে রক্ষিত ধান ও চাউল খেয়ে ব্যাপক ক্ষতিসাধান করে। গত রবি, সোম ও মঙ্গলবার উপজেলার সরই ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি হাবিবুর রহমান পাড়া, সোলেমান পাড়া, ধুইল্লাপাড়া, বাজার পাড়া, জটকি বনিয়া পাড়া ও হিমছড়ি পাড়ায় ১২-১৩টি বুন্যোহাতি এ তান্ডব চালিয়ে এসব তছনছ করে দেয়। হাতির দলটি বর্তমানে ওই এলাকায় অবস্থান করায় স্থানীয়দের মাঝে আতংক বিরাজ করছে। হাতির তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মধ্যে কেউ খোলা আকাশের নীচে জীবন যাপন করছে। আবার কেউ কেউ ঘরবাড়ী ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

ক্ষতিগ্রস্তরা জানায়, গহীন পাহাড় থেকে বুনোহাতির দল রবিবার রাতে লোকালয়ে নেমে পড়ে। পরে রাতভর হাতিগুলো হারিছ চৌধুরী, লোকমান হোসেন, মো. মিয়া, মো. শফিক, মো. শাহ আলম, মো. ইউছুপ, ভেট্টু মিয়া, গুরা মিয়া, শেখ আহমদ, সিরাজ, হামিদ, আতিয়ার মোডল, লেদু মিয়ার বসতঘর আংশিক ও সম্পূর্ণ ভাংচুর করে। এ সময় হাতিগুলো কৃষকের ঘরে থাকা প্রায় ১০০ মন ধান ও চাউল খেয়ে ফেলে। এছাড়া প্রায় ৫ একর জমির ধান, ফলজ বাগানের কলা গাছ ও কাঁঠাল খেয়ে নষ্ট করে গত তিন দিনে।

হাতি আক্রমনের শিকার হামিদ ও হারিছ চৌধুরী জানান, বুনোহাতিগুলি প্রথমে বাড়ীর চারিদিকে ঘেরাও করে ফেলে। বিশেষ করে ঘরের দরজা জানালার পাশে পাহারাদারের মত দাঁড়িয়ে থাকে। আর ঘর ভাঙ্গা শুরু করে। পরে ঘরে থাকা ধান চাল খেয়ে চলে যায়। রাতজেগে বাড়ি ঘর পাহারা দিয়ে হাতির আক্রমন থেকে রক্ষা পাওয়ার চেষ্ঠা চালাচ্ছে স্থানীয়রা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. বাবুল ও কালা মিয়া জানান, অনেক ক্ষেত্রে রাত জেগে আগুন জ্বালিয়ে ও ঢোল পিটিয়ে চিৎকার করেও বুনো হাতির দলকে সরানো যায় না। বেশি ভয় দেখালে হাতির পাল গায়ের দিকে তেড়ে আসে। এ কারণে চেয়ে দেখা ছাড়া আমাদের পক্ষে কিছুই করার থাকেনা।

হাতি আক্রমণের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সরই ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান ফরিদ উল আলম জানান, গত রবিবার থেকে বুনো হাতিগুলো এলাকায় অবস্থান করায় লোকজন এখন চরম আতঙ্কে রয়েছেন। আবারও যে কোন মুহুর্তে তান্ডব চালিয়ে জান ও মালের ক্ষতিসাধন করতে পারে। হাতির তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্তরা এখনো সরকারী কিংবা বেসরকারী কোন সহযোগিতা পায়নি।

এ বিষযে লামা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, সরই ইউনিয়নে বুনোহাতি আক্রমনের ঘটনা শুনেছি। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তরা আবেদন করলে তদন্ত পূর্বক বিধি মোতাবেক সহযোগিতা প্রদান করা হবে। পাহাড়ে হাতির আবাসস্থল ও খাবার দিনদিন কমে যাওয়ার কারণে হাতির দল এখন লোকালয়ে নেমে পড়ছে। হাতিগুলোকে গভীর বনে সরিয়ে নেয়ার জন্য স্থানীয়দের সহযোগিতায় বনবিভাগের লোকজন কাজ করছে বলে জানান তিনি।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

গভীর রাতে জেলা প্রশাসকের ২ শতাধিক কম্বল বিতরণ

চকরিয়ায় হুফ্ফাজুল কুরআন ফাউন্ডেশনের হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলন হয় কক্সবাজারে

কোনো সংবাদপত্র প্রকাশিত হয়নি একাত্তরের এই দিনে

উসকানি ঠেকাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নজরদারি করবে সরকার

তিনি মহাশক্তিধর, পাহাড় কেটে বহুতল ভবন সরকারি কর্মকর্তার

রোহিঙ্গাদের জন্য রাখাইনে ৫০টি বাড়ি দিল ভারত

দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরার মমতাজ ড্রাইভার আর নেই

নির্বাচনে ১৫ হাজার পর্যবেক্ষকের অর্থায়ন করবে যুক্তরাষ্ট্র

বঙ্গবন্ধুর কবর জিয়ারতে প্রচার শুরু করছেন শেখ হাসিনা

হাইকোর্টে ধানের শীষ পেতে আপীল গৃহীত হয়নি : হামিদ আযাদ ইতিহাস সৃষ্টি করলো!

মহিলাদের অধিকার আদায় ও খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে ধানের শীষে ভোট দিন-শিরিন রহমান

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রানের চাল নিয়ে সংঘর্ষ, আটক ৬

হ্নীলায় ইয়াবাসহ যুবক আটক

রামু উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

কক্সবাজার-১ : জাফর আলমের পক্ষে নৌকায় স্ত্রীর ভোট প্রার্থনা

‘হারিয়ে যাওয়া স্বজনের খোঁজ পেতে রেডক্রিসেন্টের সহযোগিতা নিন’

সিংহ নিয়ে ভোটে নামছেন হিরো আলম

হ্নীলায় ৪০শতক সরকারী জমি উদ্ধার

বিজয় দিবস মিডিয়া কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ট্রফি ও জার্সি উন্মোচন