নঈম আল ইস্পাহান

তখন সবেমাত্র ইন্টার পরীক্ষা শেষ করেছি।আমাদের সামনের ফ্ল্যাট থেকে এক মেয়েকে বের হতে দেখলাম।স্কুল ব্যাগ কাধে নিচে নামছে।মেয়েটি নতুন এসেছে।তাকে ইতিপূর্বে কখনো দেখিনি।প্রথম দেখাতেই মেয়েটি আমার দিকে মুচকি হেসে তাকালো।আমি তেমন একটা আমলে নেয়নি।কেননা,স্কুলে পড়ুয়া মেয়েদের দিকে তাকানোর প্রবণতা আমার মধ্যে খুবই কম।মেয়েদের সিভিল ড্রেসে দেখতে মোটামোটি ভালো লাগে।স্কুল ড্রেস,কলেজ ড্রেসে দেখতে কেমন কেমন জানি লাগে!

প্রথমদিনের পর থেকে যখনই মেয়েটির সাথে দেখা হতো তখনই মেয়েটি আমার দিকে তাকাতো।আমি খুব ইতস্থত বোধ করতাম।হঠাৎ,একদিন বিকেলে মেয়েটি সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠছে।আমি নিচে নামছি।সে আমার পাশ কেটে চলেই যাচ্ছিলো।যাওয়ার সময় জোরে আমাকে সালাম দিয়ে দৌড়ে পালালো।আমি বাকরুদ্ধ!একটা নাইন কিংবা টেনে পড়ুয়া সুন্দরী মেয়ে নিজ থেকে সালাম দিচ্ছে।লাইন মারতেছে নাকি মজা করতেছে কিছুই বুঝলাম না।মেয়েটা অনেক সুন্দরী ও মোটামোটি লম্বা ছিল।

মেয়েটার সবকিছু ঠিকঠাক ছিল।শুধু তার চুল আমার পছন্দ হয়নি।তার চুলগুলো ছিল কুঁকড়ানো।কুঁকড়ানো চুলের কোন মেয়েকে আমি কখনো ভালোবাসবো বা বিয়ে করব ভাবতেই পারিনা!কেননা,আমার একটা মেয়ের প্রথম পছন্দের হলো তার মসৃণ,সিল্কি লম্বা চুল।

সে যখনই দেখা হতো আমাকে মুচকি হেসে সালাম দিতো।আমি বের হওয়ার সময়ে দরজা খোলে দাঁড়িয়ে থাকতো।আমি শোনার মত দরজার সামনে বড় আওয়াজে কথা বলত।প্রথমে প্রথমে মনে হতো মেয়েটা আমার সাথে মজা করছে।পরে বুঝতে পারি সে মজা করছেনা।সে অন্যকিছু বুঝাচ্ছে।সে যা বুঝাচ্ছে তা কখনো আমি বুঝার চেষ্টা করিনি।কখনো তার সালামের জবাব দেয়নি।সে খুব আশা করে আমার দিকে তাকাতো আমি তার সালামের জবাব দিবো সে আশায়।কিন্তু,না।আমি কখনো তাকে সালামের জবাব দেয়নি।

একটা সময় আমি বাসা থেকে বের হলে মেয়েটাকে আর দেখতে পায়না।মনে মনে খুঁজলেও পায়না।ভাবতাম এই বুঝি কেউ সালাম দিবে!কখনোই মেয়েটি আমাকে সালাম দেয়নি আর।সে চলে গিয়েছিল।কখনো জানতে পারিনি কোথায় গেছে।কেন গেছে।সে তার বড় ভাইয়ের বাসায় থাকত।হতে পারে কোন মহিলা হোষ্টেলে শিফট হয়েছিল।

সে আমাকে ভালোবেসেছিল।আমি তার ভালোবাসা বুঝিনি।জীবনের ব্যস্ত এক মূহুর্তে এসে আমার হঠাৎ,মেয়েটির কথা খুব মনে পড়লো।সে ব্যর্থ প্রেমিকা ছিলো।আমি দেরিতে হলেও বুঝতে পারি ব্যর্থতার স্বাদ কি রকম।আমি চাইলেই তাকে কখনোই ব্যর্থ হতে হতোনা।সে ও হতে পারতো পৃথিবীর সবচেয়ে সফল একজন নারী।সে হারিয়ে গেছে।কোনদিন ফিরে আসবেনা।জীবন থেমে থাকেনা।তার জীবন থেকেও হয়তোবা আমি হারিয়ে গেছি।আমার জীবন থেকে অন্যকেউ বা অন্যকারো জীবন থেকে আমি।আসলে মানুষ নিজেই বুঝতে পারেনা সে কখন কি হারাচ্ছে।হারিয়ে গেলে বুঝতে পারে তার জীবনের ফেলে আসা দিনগুলোর মর্ম!

কক্সবাজার সরকারি কলেজ।
মোবাইল:-০১৮৪০-৩২৯৫০৩
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •