সংবাদদাতা:

ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের অধীন রিংভং বনবিট কর্মকর্তা,কর্মচারী ও বন জায়গীয়দারদের নিয়ে ফাঁসিয়াখালী উচিতারবিলে অভিযান চালিয়ে দখলকৃত ২টি টিনের ঘেরা বাড়ীসহ , ঘেরাবেড়া উচ্ছেদ করে গত ১৮ এপ্রিল সকাল ৮টায়।

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের অধীন রিংভং ফাঁসিয়াখালী বন বিট কর্মকর্তা জাকের হোসেনের নেতৃত্বে চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের উচিতারবিল বন পাহাড়ে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে অবৈধ স্থাপনার মালিক চকরিয়া পালাকাটা গ্রামের বনভূমি দস্যু দলিলুর রহমান গং-এর দখলকৃত জায়গার উপর নির্মিত ২টি টিনের বাড়ী সহ ঘেরাবেড়া উচ্ছেদ করে দেয়।

জানা যায় যে, বনখেকো ও বনভূমিদস্যুরা এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি এবং দলীয় রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তারে তারা বনভূমিকে প্রতিনিয়ত ভক্ষণ করে চলছে। তাছাড়া তাদের সিন্ডিকেটে প্রায় ১২০জন মত প্রভাবশালী ব্যক্তি জড়িত আছে। তাই তাদের সরকার বিরোধি এ অপকর্মের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলে কথা বলতে রাজী নহে। গোপন সূত্রে জানা যায় যে, তাদের উচিতারবিলের নির্মিত স্থাপনার প্রায় ৫০ ফুট পরে ফাঁসিয়াখালী ছরার পাশ দিয়ে চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে রাতের অন্ধকারে ডাকাতি ঘটনা প্রায় সময় ঘটতে থাকে।

এতে এলাকার সচেতন মহলের ধারণা এ প্রভাবশালী বনখেকো সিন্ডিকেটের আশ্রয় প্রশ্রয়ের কারণে এ ধরণের অপরাধ জনিত ঘটনা ঘটে বলে জানান এলাকাবাসী। বিট কর্মকর্তা জাকের হোসেন বলেন , যারা দেশের সবুজ প্রকৃতি , সরকারী বনভূমি দখলযজ্ঞ ও নিধন ক্রিয়া প্রক্রিয়ায় সার্বক্ষণিক জড়িত থাকে সরকারের নির্দেশ মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের এখতেয়ার আছে। বিধায় আজকের উচ্ছেদ অভিযানের দখলবাজদের বিরুদ্ধে আগামীকালকে থানায় একখানা পুলিশ মামলা রুজু করার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •