সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

উখিয়া দারোগা বাজার কেন্দ্রীয় মহাশ্মশান ভূমির জবর দখলকে কেন্দ্র করে এবং ভূমি উদ্ধারের দাবীতে দারোগা বাজার সমাজ শ্মশান ভৈরব ও দূর্গা মন্দির উন্নয়ন এবং পরিচালনা পরিষদের পক্ষ থেকে গত ৭ সেপ্টেম্বর মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশের মধ্য দিয়ে ১২ দফা কর্মসূচী ঘোষণা পূর্বক উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।

এর প্রেক্ষিতে ৯ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার স্বাক্ষরিত এক নোটিশ মারফত ১২ সেপ্টেম্বর সরেজমিন তদন্ত করতে যায়। ওইদিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দিন আহমেদ, উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আহমেদ সনজুর মোর্শেদ ও উখিয়া উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী’র উপস্থিতিতে সামাজিক সম্প্রতি বজায় রাখার স্বার্থে উভয়পক্ষের সম্মতিক্রমে তারা প্রাথমিক ভাবে একটি সীমা চিহ্ন নির্ধারণ করে দেয়। উখিয়া সদরের মন্দির ও শ্মশান কমিটির পক্ষ থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে চিহ্নিত সীমা রেখা স্থানে সীমানা প্রাচীর (বাউন্ডারী ওয়াল) নির্মাণ কাজ শুরু করে। নিমার্ণ কাজের শেষ পর্যায়ে এসে মধ্যমাংশের সামান্য একটি অংশে কাজ করতে গেলে শাহাব উদ্দিন গং বাধাঁ প্রদান করে এবং কাজের মিস্ত্রি ও সমাজের নেতৃবৃন্দকে কাজ করতে গেলে হত্যার হুমকি দেয়। এবিষয়টি ইউএনও ও ওসি, স্থানীয় চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হলে তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে শাহাব উদ্দিন গং সময় চাইলে গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গাছ কেটে নেওয়ার সময় দেয়। কিন্তু তারা নানা প্রকার তালবাহনা করে সীমানা প্রাচীরের মধ্যাংশে পড়া গাছও কাটছে না এবং কাজেও বাঁধা দিয়ে কালক্ষেপন করছে। এদিকে শাহাব উদ্দিন গং কর্তৃক দায়ের করা কক্সবাজার বিজ্ঞ জেলা জজ আদালতে অপর ১০৪/১৯ আপিল মামলা বিগত ২৩/০৯/২০২১ইং তারিখ নিষ্পত্তি করা হয় মর্মে আদেশ দেন। উক্ত আদেশ পর্যালোচনা করে শ্মশান কমিটির পক্ষ থেকে মামলা পরিচালনাকারী এড. শিবু লাল দেব দাশ কর্তৃক উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর প্রেরিত মতামত উল্লেখ করেন। মামলায় বাদী আপিলকারী পক্ষ Adverse Possession এবং নিষেধাজ্ঞার ডিগ্রী প্রার্থনা করিয়াছিল। বিজ্ঞ সহকারি জজ এবং জেলা জজ উভয়ে বাদী আপিলকারীর এ দাবী অসমীচীন ও অবৈধ বিধায় সরাসরি না মঞ্জুর করিয়াছেন। তাছাড়া সরকারকে বন্দোবস্তি প্রদানের জন্য বিজ্ঞ জজের নির্দেশ কামনা করিলেও তাহাও প্রত্যাখান করা হয়। বস্তুত দখলের অজুহাতে শ্মশান, কবরস্থান বা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের জমি কোন ভাবেই অর্জন করা যায় না বা অন্যায় অবৈধ দখলকে বৈধতা দেওয়া যায় না। এ রূপ অবস্থায় শ্মশানের সীমানা দেওয়াল নির্মাণ করিতে কোন বাঁধা নেই। অপর দিকে গত বৃহস্পতিবার ৭ অক্টোবর দারোগা বাজার সমাজ শ্মশান ভৈরব ও দূর্গা মন্দির উন্নয়ন এবং পরিচালনা পরিষদের এক জরুরী সভা রাত সাড়ে ৭ টায় ভৈরব মন্দির প্রাঙ্গনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রতন কান্তি দে’র পরিচালনায় সভাপতি বাবু মৃদুল আইচের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য মাস্টার মুখন্দ প্রসাদ রুদ্র, সংগঠনের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও উখিয়া উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এড. রবীন্দ্র দাশ রবি, অর্থ সম্পাদক ডা: পিন্টু কান্তি ধর, লিটন দাশ, ছোটন চৌধুরী, বিমল চক্রবর্তী, সজল আইচ, সদর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি উৎপল বিশ^াস, সাধারণ সম্পাদক প্রিয়তোষ ধর, অর্থ সম্পাদক রাজীব আইচ, বাসু দেব নাথ প্রমুখ। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আজ শনিবারের মধ্যে উখিয়া দারোগা বাজার কেন্দ্রীয় শ্মশানের সৃষ্ট সমস্যার সমাধান না হলে উখিয়া সদরের শারদীয় দূর্গাপূজা স্থগিত রাখা ও এ দাবীতে ইউএনও কার্যালয়ের সামনে মহিলাদের অবস্থান কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •