বিশেষ প্রতিবেদক:
কক্সবাজার সদরের পিএমখালি ইউনিয়নের ছনখোলা ০২ নং ওয়ার্ডের মালিপাড়া এলাকায় ইউপি সদস্য রমজান আলী মেম্বার এর নেতৃত্বে জোরপূর্বক বনবিভাগের জমি দখল করে রাতারাতি অবৈধ বসতবাড়ি স্থাপনা করার অভিযোগ উঠেছে। ২৯ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল৭টার দিকে ১০০জনেরও বেশি লোকজন নিয়ে বনবিভাগে জায়গাটি দখল করে। শুধু তা নয়, দা, কিরিচ, লাঠিশোটা ও দেশিয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বীরদর্পে ঐ জায়গার উপর বসে থাকে ভূমিদস্যু চক্রটি এবং “হুঙ্কার দিতে থাকে কেউ যদি বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করেন গুলি করতে বাধ্য হবো” যা ছবির মধ্যে দেখা যাচ্ছে। এ ঘটনায় এলাকায় যে কোন সময় রক্তক্ষয়ি সংর্ঘষের আশংকা রয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা। তাই দ্রুত সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

স্থানীয় আমির হামজাসহ অনেকে জানান “ রমজান মেম্বারের নেতৃত্বে একদল ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসী গ্রুপ এলাকায় বিভিন্ন অপকর্ম চালাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২৯ শে সেপ্টেম্বর বুধবার সকালের দিকে মেম্বারের নেতৃত্বে স্থানীয় মৃত গোলাম কবিরের ছেলে মনসুর আলম, মোঃ নুর এর ছেলে নুরুল আমিন, আবদুল শুক্কুর ছেলে আব্দুল হাকিম, মোঃ বাবুল, মোঃ আব্দুল্লাহ, কালা মিয়া, আলী আহমদের ছেলে মোঃ ছাবের, এবং নজির আহমদের ছেলে নুরুল আফসার সহ চক্রটি আমার খতিয়ানভুক্ত জায়গার মাথাখিলা বনবিভাগের জমি অস্ত্রের মুখে দখল করে নেয়। এসময় কেউ বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা চালালে গুলি করে মেরে ফেলার হুঙ্কার দিতে থাকে চক্রটি।

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও জীব-বৈচিত্র্য সংরক্ষণে দেশের সীমিত বনাঞ্চল রক্ষায় সরকার একদিকে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে। অন্যদিকে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে ভূমিদস্যু চক্রের মাধ্যমে বন নষ্ট করার অভিযোগ সহ বনবিভাগের জায়গা দখল করে বাণিজ্য করার অভিযোগ উঠেছে এই রমজান আলী মেম্বারের বিরুদ্ধে।

এব্যাপারে স্থানীয় ২ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য রমজান আলী মেম্বার বলেন, প্রথমে ঘটনার সত্যতা অস্বীকার করে, পরে বনবিভাগের জায়গাটি নিজের জায়গা দাবি করে বাসা তৈরি করেছি বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •