বার্তা পরিবেশক:

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা ও জাগরণ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ক্লিন ইমেজের অধিকারী খোরশেদুল ইসলাম। ২০২১ সালের ডিসেম্বরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন নির্বাচন কমিশন। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা খোরশেদুল আলম মগনামা ইউনিয়নের প্রতিটি জনপদে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করে যাচ্ছেন। জনগনের কল্যাণে সম্ভব সবধরণের কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। পাশাপাশি আওয়ামীলীগের নিবেদিত প্রাণ এ সাবেক ছাত্রনেতাকে এবার নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চান মগনামাবাসি।

এবারের অনুষ্ঠিতব্য মগনামা ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হচ্ছেন তরুণ রাজনীতিবিদ ও সমাজ সেবক খোরশেদুল ইসলাম বিকম। এলাকায় তার বেশ পরিচিতি রয়েছে। এক সময় ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। মমতাজ লিটনের উপজেলা ছাত্রলীগ কমিটিতে খোরশেদুল ইসলাম সহ-সভাপতি পদে অধিষ্টিত ছিলেন। সেই সময় থেকে মাঠে ময়দানে আ’লীগের পক্ষে সরব ছিলেন। আপাদ মস্তক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক এলাকায় ব্যবসা বাণিজ্য নিয়ে জীবিকায়ন করেন। খোরশেদুল ইসলামের পিতা রশিদ আহমদ প্রকাশ রশিদ কৌম্পানীও মগনামায় অত্যন্ত পরিচিতি। মর্যাদাবান ব্যক্তিত্ব ও ব্যবসায়ী হিসেবে রশিদ কৌম্পানী মানুষের কাছে বেশ পরিচিত ছিলেন।

এলাকার দরিদ্র ও অসহায় মানুষের জন্য উদার ছিলেন খোরশেদের পিতা। পিতার যোগ্য সন্তান হিসেবে খোরশেদও দেশ ও মাতৃকার জন্য কাজ করার দৃঢ় সংকল্প বদ্ধ হয়েছেন। ইতিমধ্যে খোরশেদের অনুপ্রেরণায় অনেক কাজ হচ্ছে গ্রামে। মানুষকে অর্থ সহায়তা, রাস্তাঘাটের উন্নয়নের জন্য পকেটের টাকাও বিলিয়ে দিচ্ছেন খোরশেদ। ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি পদেও তিনি অধিষ্টিত। আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম ও আনুসাংগিক ব্যয়ও বহন করতে কার্পন্যবোধ করেননা। মন মানসিকতা নিয়ে তিনি মাঠে নেমেছেন। মগনামা ইউনিয়নের সাধারণ ভোটাররা জানান, আসলে আমরা পরিবর্তনের পক্ষে। মানুষ আর কত জিম্মী থাকবে। খোরশেদ প্রশংসনীয় ব্যক্তি। সর্বজন স্নেহাষ্পদ ও গ্রহনযোগ্য এমন তারুণ্যকে নিয়ে আমরা মগনামাকে সাজাতে চাই।

এ ব্যাপারে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক ছাত্রনেতা খোরশেদুল ইসলাম বলেন, আমি সেই ছাত্র জীবন থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একজন ভ্যানগার্ড হিসেবে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছে। আওয়ামীলীগের দুর্দিন দু:সময়ে সকল আন্দোলন সংগ্রামে অবিচল থেকেছি। আমার বিশ^াস এবার আওয়ামীলীগ থেকে দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাদের মুল্যায়ন করা হবে। বসন্তের কোকিলদের বিতাড়িত করা হবে। আশাকরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুজিব আর্দশের পরীক্ষিত কর্মী হিসেবে এবার আমাকে মনোনয়ন দেবে। তিনি বলেন, আমি মগনামা ইউনিয়নের সর্বসাধারণের সেবা করতে চাই। মানুষের কাছে পৌছতে চাই। তাই এবারের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছি। আমার ঘোষনা, ইউনিয়ন পরিষদ হবে গরীবের আস্থা ও বিশ্বাসের ঠিকানা। পরিশেষে আমি প্রিয় মগনামাবাসীকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন অগ্রযাত্রার পক্ষে অবিচল থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি।