অনলাইন ডেস্ক: নাটোরের গুরুদাসপুরে হালখাতার কার্ডে নামের আগে আলহাজ না লেখায় আমিনুল হক নামে একজনের বিরুদ্ধে হামলা চালিয়ে পাঁচজনকে আহত করার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার ধারাবারিষা ইউনিয়নের দাদুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন— দোকানি আনোয়ার হোসেন, রিক্তা খাতুন, সাহাবুল ইসলাম, আবু জাফর আলী ও অন্তঃসত্ত্বা নারী সুফিয়া বেগম। গুরুতর আহত অবস্থায় তারা গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হামলার ঘটনায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী দোকানি আনোয়ার হোসেন।

স্থানীয়রা জানায়, সম্প্রতি হজ করেছেন আমিনুল হক। এরপর থেকে তাকে অনেকে ‌‘আলহাজ আমিনুল হক’ সম্বোধন করেন। এদিকে কয়েকদিন পর দাদুয়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের সিট কাপড়ের দোকানে হালখাতা। দোকানে আমিনুল হকের বকেয়া ছিল। হালখাতায় টাকা পরিশোধের জন্য তাকে কার্ড দেন আনোয়ার। কিন্তু কার্ডে নামের আগে ‌‘আলহাজ’ লেখা না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হন আমিনুল। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার সকালে আনোয়ারের দোকানে আসেন তিনি। আলহাজ না লেখার কারণ নিয়ে দুই জনের মধ্যে তর্কাতর্কি হয়। এক পর্যায়ে আমিনুল হক তার স্বজনদের খবর দেন। তারা এসে আনোয়ারের দোকানে হামলা ও ভাঙচুর চালায়।

এ সময় গুরুতর আহত হন আনোয়ার হোসেন, সুফিয়া বেগম, রিক্তা খাতুন, সাহাবুল ইসলাম ও আবু জাফর আলী। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আব্দুল মতিন জানান, আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। এ ঘটনায় রাতেই হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •