সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) অনুমোদন থাকা সত্বেও ওয়েলকাম প্রপার্টিজের ড্রিম হাউস এ্যাপার্টমেন্টের সাইনবোর্ড উচ্ছেদ ও অনুমোদনহীন বলে অভিযোগ এনে স্থানীয় গণমাধ্যমে গণ-বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। যা আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। মূলতঃ শহরের বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়াম রোডে ১৬ শতক জমিতে ইমারাত নির্মাণ বিধিমালা ১৯৯৬ প্রতিপালন সাপেক্ষে ৮ তলা বহুতল ভবন নির্মাণের জন্য ২০১২ সালের ০৬ ফেব্রুয়ারী গ্রীণ ডেল্টা হাউজিংয়ের পরিচালক দিলদার হোসেনের নামে অনুমোদন দেন তৎকালীন কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃর্পক্ষ।

এতে ২নং শর্তাবলীতে বলা হয়, বর্তমান অনুমোদনের তারিখ হতে দুই বৎসর পর্যন্ত নকশার অনুমোদন বলবৎ থাকবে। এই সময়ের মধ্যে নির্মাণ কার্য শুরু না করা হলে সময়সীমা অতিক্রান্ত হওয়ার পূর্বে যথোপযুক্ত ফিস জমা দিয়ে আবেদনের মাধ্যমে নবায়ন করতে হবে। ওই জমিতে ইমারত নির্মাণের জন্য পুলিশের অনাপত্তিপত্র, এডিসি রেভিনিউ শাখা কতৃর্ক জমির ছাড়পত্র, সিভিল এভিয়েশন, ফায়ার সার্ভিস ও পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র আছে। কিন্তু সঠিক সময়ে নানা সীমাবদ্ধতার কারণে গ্রীণ ডেল্টা হাউজিং ইমারত নির্মাণে ব্যর্থ হয়। পরবর্তীতে মূল মালিক থেকে ওই ১৬ শতক জমি কিনে নিই আমি।

যার দরূন বিগত ২০২০ সালের ০৭ সেপ্টেম্বর দলিল ২৪০৭/২০ ও ২৪০৮/২০ মূলে আমাকে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি প্রদান করা হয়। যার আলোকে ওই জমিতে ওয়েলকাম প্রপার্টিজ গ্রুপ ‘ ড্রীম হাউস এ্যাপার্টমেন্ট’ তৈরির উদ্যোগে গ্রহণ করি। ইতোমধ্যে সেখানে সাইনবোর্ডও স্থাপন করা হয়। সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত হয়ে আমি দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলাম। প্রায় ১০ দিন আমি মালুমঘাট খ্রিস্টান মেমোরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলাম। করোনা আক্রান্ত থাকাকালীন আমাকে কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃর্পক্ষ থেকে ফোন দিয়ে অনুমোদনের বিষয়টি জানতে চাওয়া হয়। আমি সুস্থ হয়ে অনুমোদনসহ ওই জমির সমস্ত কাগজপত্র নিয়ে কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃর্পক্ষের অফিসে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিই।

কিন্তু সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃর্পক্ষের একটি টিম ওয়েলকাম প্রপার্টিজের ‘ড্রিম হাউস এ্যাপার্টমেন্ট’র স্থাপিত সাইনবোর্ডটি তুলে নিয়ে যায়। একই সাথে ড্রীম হাউস এ্যাপার্টমেন্ট অনুমোদনহীন বলে স্থানীয় গণমাধ্যমে গণ-বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। আমি দীর্ঘদিন ধরে সুনামে সাথে আবাসনসহ নানা উন্নয়নমূলক ব্যবসা করে আসছি। যার আলোকে ওয়েলকাম প্রপার্টিজ ইতোমধ্যে ব্যবসায়ীকভাবে ব্যাপক সুনাম ও সফলতা অর্জন করেছে। তাই এ নিয়ে কাউকে বিভ্রান্তি না হওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

প্রতিবাদকারী
বদরুল হাসান মিলকী
ব্যবস্থাপনা পরিচালক
ওয়েলকাম প্রপার্টিজ, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •