মোহাম্মদ হোসেন,হাটহাজারী:
রোববার ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সারাদেশের মতো চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের মধ্য দিয়ে বহু কাঙ্খিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলেছে। মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা বাধ্যতামূলক।
শ্রেণিকক্ষে স্বল্পসংখ্যক শিক্ষার্থী নিয়ে পাঠদান শুরু করতে দেখা গেছে। ১০টায় স্কুল গুলোতে স্বতস্ফুর্তভাবে উপস্থিতিতে যেন তাদের মধ্য দেড় বছরের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে।
সরেজমিন উপজেলা কার্যলয় সংলগ্ন হাটহাজারী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনকালে দেখা যায়,সামাজিক দূরত্ব মেনে পাঠদান দিচ্ছে শিক্ষকেরা। দীর্ঘ দিন পরে স্কুল খুলেছে যার কারনে শিক্ষার্থীদের মাঝেও এসেছে উৎকন্ঠাহীন আনন্দ। শ্রেণিক্ষের বাইরে শিক্ষার্থীরা নিরাপদ স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করলেও স্কুলের শিক্ষকেরা কঠোর নির্দেশনায় শ্রেণিকক্ষে ছিলো সরকারী নিয়মানুয়ী নিরাপদ দূরত্বে।

হাটহাজারী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানিয়েছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণায় সব প্রস্তুতির মধ্যে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের ব্যাপারে বেশি জোর দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের মাঠ থেকে শুরু করে ব্র্রেঞ্চ, চেয়ার-টেবিল পরিস্কার করে ঝকঝকে করা হয়েছে। দীর্ঘদিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলায় সবচেয়ে বেশি আনন্দ উচ্ছ্বাস
দেখিয়েছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। অনেক অভিভাবকই তার সন্তানকে নিয়ে বিদ্যালয়ে নিয়ে পৌছে দিয়েছেন।

সরকারী নির্দেশনার ক্ষেত্রে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিদুল আলম জানান, শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ্য রাখতে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক এবং প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টরা প্রতিদিন তাদের পর্যবেক্ষণ করবেন। এজন্য উপজেলা প্রশাসননের একটি সার্ভিলেন্স টিম কাজ করবে। গত তিন দিন থেকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ তেকে মাঠ পর্যায়ের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান শুরু
করার আগে তা সম্পূর্ণ তৈরি আছে কি-না তা মনিটরিং করা হয়েছে। কোন প্রতিষ্ঠানে কভিড-১৯ সংক্রামণের ঝুঁকি থাকলে স্থানীয় পর্যায়ে তার অবস্থান বিবেচনায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে এবং সেখান থেকে যে নির্দেশনা আসবে তা বাস্তবায়ন করবে উপজেলা প্রশাসন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •