টেকনাফ সংবাদদাতা:
টেকনাফ থানা পুলিশের উপর হামলা করে হাতকড়াসহ ছিনিয়ে নেওয়া বহু মামলার পলাতক আসামি হাবিব ওরফে মগু মিয়াকে আটক করে পুলিশ। আটকের পর আসামীর বসত বাড়ীতে অভিযানের সময় ইউপি মেম্বার হাফেজ মাওলানা ছৈয়দুল ইসলাম ও উপস্থিত ছিলেন বলে স্থানীয় সুত্রে জানা যায়। ১০ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত ৯ টার দিকে উপজেলার ছোট হাবিব পাড়া এলাকায় আটক আসামীসহ অভিযান চালিয়ে ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ। তার সাথে মৌলভী পাড়া এলাকার মৃত ছৈয়দুর রহমানের ছেলে আব্দুল গণি(৪০)কেও আটক করা হয় ।

শুক্রবার দিবাগত রাত ৯ টার দিকে এসব তথ্য নিশ্চিত করে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাফিজুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ হামলার অন্যতম পলাতক আসামী ও শীর্ষ মাদক কারবারি টেকনাফের ছোট হাবির পাড়ার হাবিব উল্লাহ ওরফে মগু কক্সবাজার অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদের খবরে শুক্রবার দুপুরের উখিয়া সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাকিল আহমদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল কক্সবাজার বিলকিস মার্কেটের সামনে অভিযান পরিচালনা করে। এসময় পালানোর চেষ্টকালে হাবিব উল্লাহ ওরফে মগুকে আটক করে।’

তিনি আরো জানান, “আটক মগু ইয়াবার চালান মজুদের বিভিন্ন তথ্য দিয়ে পাহাড়সহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরিয়ে সময় পার করে। সর্বশেষ সন্ধ্যায় জিজ্ঞাসাবাদে ছোট হাবিব পাড়া তার এলাকায় এক বাড়িতে ইয়াবা চালান মজুদের কথা স্বীকার করে। পরে তাকে নিয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান পরিচালনা করে ওই বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে আলমিরা থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা বড়ি পাওয়া যায়। এসময় তার সহযোগি আবদুল গণিকে আটক করে। দীর্ঘ এক মাস পর পুলিশ হামলাকারি এলাকার ত্রাস ও শীর্ষ মাদককারবারি মগুসহ তার সহযোগিকে ইয়াবাসহ আটক করতে সক্ষম হয়। মগুর বিরোদ্ধে মাদকসহ ৯টি মামলা রয়েছে। মাদক রোধে পুলিশের অভিযান চলছে। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট ধারায় মাদক মামলার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ আগস্ট বুধবার মাদকসহ একাধিক মামলার আসামি ও শীর্ষ মাদক কারবারি টেকনাফ সদর ইউনিয়নের ছোট হাবির পাড়ারয় হাবিবুর রহমান হাবিব ওরফে মগুকে আটক করে থানায় নিয়ে আসার সময় লোহা রড, দা, কিরিচসহ ইট পাটকেল দিয়ে পুলিশকে হামলা চালিয়ে তাকে ছিনিয়ে নেয় তার লোকজন। সেসময় তিন পুলিশ আহত হন। এ ঘটনায় ইউপি সদস্য সৈয়দুল ইসলাম ও মগুসহ ৪৪ জনকে প্রধান আসামি করে একটি মামলা করেছিল। দীর্ঘ এক মাস পর তাকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।
স্থানীয় মেম্বার হাফেজ মাওলানা ছৈয়দুল ইসলাম জানান টেকনাফ থানা পুলিশের একটি চৌকস টিম হাবিব ওরফে মগুমিয়া কে নিয়ে এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছে। গেল ৪ আগষ্ট বিকেলে তাকে হাতকড়া সহ পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় তাকেসহ ৪৪জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে পুলিশ। মামলা নল-১৯, তারিখঃ ০৪-০৮-২০২১। মগু ওই মামলার ২৫ নং আসামী। তাকে আটক করায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তথা উখিয়া সার্কেল শাকিল আহমদ ও টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হাফিজুর রহমান সহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

হাফেজ মাওলানা ছৈয়দুল ইসলাম মেম্বার আরও জানিয়েছেন অপরাধী যেই হোক তাকে আটক করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতা করা জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার দায়িত্ব।

এবং অপরাধী যেই হোক তার তথ্য বা আটক করতে সহযোগিতা করতে তিনি সবসময় প্রস্তুত। আজও তিনি পুলিশ তাকে সহ অভিযানে আসলে পুলিশের সাথে অভিযানে ছিলেন বলেও জানায় সে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •