চকরিয়া সংবাদদাতা:
চকরিয়ায় পিতা-মাতাকে মারধর ও ভরণ পোষনের দাবীতে অবাধ্য সন্তানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়েরের পরও পরিত্রাণ পায়নি অসহায় পিতা। প্রতি মাসে ২হাজার ৫শত টাকা করে পিতাকে ভরণ পোষন দিতে আদালতের নির্দেশনা দেওয়ার পর উক্ত নির্দেশনার তোয়াক্কাই করেনি পাষন্ড পুত্র ও পুত্রবধু। এনিয়ে ১০ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন অসহায় পিতা। ঘটনাটি ঘটেছে চকরিয়া পৌরসভা ৯নং ওয়ার্ডের দিগরপানখালী গ্রামে। এ অভিযোগ করেন ওই গ্রামের মরহুম মতিউর রহমানের পুত্র বয়োবৃদ্ধ জামাল উদ্দিন (৭৯)।

তিনি জানিয়েছেন, তার ৫ পুত্র ও ৩ কন্যা সন্তান রয়েছে। তন্মধ্যে ৫পুত্রই বিয়ে করেন এবং ২ কন্যা বিবাহ দেন। অবশিষ্ট ১কন্যা বিবাহ যোগ্য রয়েছে। নিয়মানুযায়ী সব পুত্রদেরকে আলাদা আলাদা করে বাড়ি ভিটা করে দেন। কিন্তু এক পুত্র বরাবরই অবাধ্য থেকে যান। পুত্রবধুর কথায় পুত্র বার বার নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে অসহায় পিতাকে।

এঘটনায় পিতা জামাল উদ্দিন বাদী হয়ে আদালতে দায়েরকৃত মামলা (নং সিআর৬৮৫/২১) দায়ের করেন পুত্র আবুল কালাম আজাদ (৪৫) ও পুত্রবধু নাসরিন আক্তার বুুলু (৪০) এর বিরুদ্ধে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুত্রকে প্রতি মাসে ২,৫০০ টাকা করে পিতার ভরণ পোষন দেয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু তা অমান্য করে সর্বশেষ ১০ সেপ্টেম্বর সকালে অসহায় পিতা ও মাতাকে মারধর করে পিতার ভোগ দখলীয় সামান্য জমি টুকুও জবর দখলের চেষ্টা চালান। এনিয়ে এদিন পিতা বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ জানিয়েছেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য থানার ওসিকে নির্দেশনা দিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •