সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

বনভূমি ধ্বংস করে কক্সবাজারে সিভিল সার্ভিস একাডেমি করার উদ্যোগ বাতিলের দাবি জানিয়েছে কক্সবাজারের সাবেক ছাত্র নেতৃবৃন্দ। ছাত্রলীগ, ছাত্রদল, ছাত্র ইউনিয়ন ও জাসদ ছাত্রলীগের সভাপতি—সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা সাবেক ২৬ নেতা এই বিবৃতি দেন।

বিবৃতিতে নেতারা বলেন, বিভিন্ন কারণে কক্সবাজারের ১০ হাজারের মতো বনভূমি সংকটময় অবস্থায় পরার পর নতুন করে ৭০০ একর বনভূমির উপর এডমিন একাডেমি না করায় হবে এই অঞ্চলের পরিবেশের জন্য মঙ্গল।
বনাঞ্চলের বাইরে গিয়ে পরিবেশের ক্ষতি না হয় এমন স্থান নির্ধারণ করে এই একাডেমী করা যেতে পারে বলে মনে করেন সাবেক ছাত্র নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ মনে করেন, ইতোমধ্যেই সংকটের মধ্যে পড়েছে বিপন্ন এশীয় বন্য হাতিসহ অনেক প্রাণি। তাই সংরক্ষিত এই বনভূমি রক্ষার দাবীর পাশাপাশি সংকটাপন্ন ওই ৭০০ একরের মধ্যে একাডেমি নির্মাণ না করার দাবি জানান বিভিন্ন সময় জেলায় নেতৃত্ব দেয়া এই সাবেক ছাত্রনেতারা।

বিবৃতি দাতার হলেন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যে—সাবেক সভাপতি অ্যাড. তাপস রক্ষিত, অ্যাড. অরূপ বড়ুয়া তপু, আবু তালেব, নুরুল আজিম কনক, ইশতিয়াক আহমেদ জয় ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসেন তানিম।

সাবেক ছাত্রদল নেতাদের মধ্যে—সাবেক সভাপতি অ্যাড. মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, এসএম আকতার চৌধুরী, এম. মোক্তার আহমেদ, ছৈয়দ আহমেদ উজ্জ্বল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল হুদা ছিদ্দিকী জামশেদ ও অ্যাড. মনির উদ্দিন।

সাবেক জাসদ ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যে—সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ হোসেন মাসু, গিয়াস উদ্দিন, মিজানুর রহমান বাহাদুর, আব্দুল জব্বার, আব্দুর রহমান ও সাবেক সাধারণ সম্পদক আজিজুল হক আজিজ।

সাবেক ছাত্র ইউনিয়ন নেতাদের মধ্যে—সাবেক সভাপতি সোমনাথ চক্রবর্তী শম্ভু, অনিক দত্ত, করিম উল্লাহ কলিম, শংকর বড়ুয়া রুমি, রিদুয়ান আলী, শহিদুল্লাহ শহিদ, সৌরভ দেব ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক রিপন বড়ুয়া অর্ণব।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •