টেকনাফ প্রতিনিধি :
আজ ৭ সেপ্টেম্বর বর্বরোচিত, হৃদয় বিদারক ও জগন্যতম হত্যাকান্ডের শিকার শহীদ আলী উল্লাহ আলোর ১০ম শাহাদত বার্ষিকী।
২০১১ সনের ৭ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার জেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ মোঃ আবদুল্লাহর শিশু পুত্র ও টেকনাফ বিজিবি-পাবলিক স্কুলের ১ম শ্রেনীর ছাত্র আলী উল্লাহ আলোকে খুনিরা তার নিজ বাড়ীর কাচারী ঘরে জবাই করে হত্যা করেছিল।
এ হত্যার ১০ বছর অতিবাহিত হলেও মূল ইন্ধনদাতারা এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। এমনকি ওই অদৃশ্য শক্তি ও হত্যা পরিকল্পনাকারী গডফাদাররা কৌশলে মামলার আসামি সুমনকে জামিনে মুক্ত করে তাকেও হত্যার চেষ্টা করেছিল বলে আলোর পিতা দাবি করেন।
এদিকে দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের উদ্যোগ গ্রহন করেছে শহীদ আলী উল্লাহ আলোর পারিবার।
সুত্রে জানা গেছে, আজ দিনটি উপলক্ষে খতমে বোখারী, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, গরীব-দূঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরনের আয়োজনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নিয়েছে।
এছাড়াও প্রতি বছরের ন্যায় আলোর ১০তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে শহীদ আলী উল্লাহ আলো স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কোরআন খতম, এতিম ও মিসকিনদের খাবার বিতরণসহ ধর্মীয় নানা কর্মসূচী পালনের উদ্যোগ নিয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ২০১১ সনের ৭ সেপ্টেম্বর টেকনাফ উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ আবদুল্লাহর শিশুপুত্র ও টেকনাফ বিজিবি স্কুলের ১ম শ্রেনীর ছাত্র আলী উল্লাহ আলোকে ভাড়াটিয়া খুনিরা তার নিজ বাড়ীর কাচারী ঘরে নির্মমভাবে জবাই করে হত্যা করেছিল। এ হত্যাকান্ডের ১০ বছর অতিবাহিত হলেও হত্যার মূল ইন্দন দাতারা এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। এমনিক ওই অদৃশ্য শক্তি ও হত্যা পরিকল্পনাকারী গডফাদাররা কৌশলে মামলার আসামী সুমনকে জামিনে মুক্ত করে তাকেও হত্যার চেষ্টা করেছিল। বর্তমানে আলো হত্যার মামলা বিচারাধীন রয়েছে।
এমন বর্বরোচিত হত্যাকান্ডের মুল ইন্দনদাতা ও হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবী করেছেন টেকনাফের সচেতন মহল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •