সিবিএন ডেস্ক:
আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে তালেবানের সঙ্গে সমন্বয়ের ইঙ্গিত দিয়েছে ওয়াশিংটন। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ারম্যান মার্ক মিলি এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস।

জেনারেল মার্ক মিলি বলেন, আফগানিস্তানে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস বা অন্যদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে যুক্তরাষ্ট্র তালেবানের সঙ্গে সমন্বয় করতে চাইবে; এমনটা সম্ভব।

আফগানিস্তানে অবশ্য তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সমন্বয়ের ইতিহাস এটিই প্রথম নয়। ২০২১ সালের ১৫ আগস্ট তালেবান কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নিলে দলটির সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ অব্যাহত রাখেন মার্কিন কর্মকর্তারা। আফগানিস্তান থেকে এক লাখ ২৪ হাজারেরও বেশি মানুষকে সরিয়ে আনার প্রক্রিয়ায় তালেবান কমান্ডারদের সঙ্গে প্রতিদিনই কথা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কমান্ডারদের। সর্বশেষ মার্কিন বাহিনী কাবুল ত্যাগের পর জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানান, উদ্ধার প্রক্রিয়ায় আমেরিকাকে সহায়তা দিয়েছে তালেবান।

২০০১ সালে আফগানিস্তানে এই তালেবানকেই ক্ষমতাচ্যুত করে যুক্তরাষ্ট্র। এরপর প্রায় ২০ বছর ধরে মার্কিন বাহিনী দলটির বিরুদ্ধে লড়াই করেছে। এ সময়ে আফগান বাহিনীকে প্রশিক্ষণের পাশাপাশি অত্যাধুনিক বিভিন্ন সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহ করে ওয়াশিংটন। তবে শেষ পর্যন্ত ২০২১ সালের ১৫ আগস্ট প্রায় বিনা বাধায় কাবুলে ঢুকে পড়ে তালেবান। বিমানভর্তি টাকা নিয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান মার্কিন সমর্থিত প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি। কাবুলের নতুন শাসকগোষ্ঠী তালেবানের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন নাগরিকসহ নিজের লোকদের সরিয়ে নেয় যুক্তরাষ্ট্র।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •