আব্দুস সালাম,টেকনাফ:
কক্সবাজারের টেকনাফের শাহপরীরদ্বীপ কোনার পাড়া এলাকায় সরকারী পুরাতন ভবন অনিয়মতান্ত্রিকভাবে ভেঙে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ছেনোয়ারা বেগম সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীরদ্বীপ ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য।

জানা যায়, উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীরদ্বীপ কোনার পাড়া এলাকায় পুকুর সংলগ্ন টিএন্ডটি অফিসের একটি একতলা পাকা ভবন ছিল।
প্রায় ৪০ বছর আগে নির্মিত এ ভবনটিতে টিএন্ডটি অফিস বন্ধ হওয়ায় স্থানীয় এক ভূমিহীন মহিলা স্ব-পরিবারে বসবাস করতেন। কিন্তু ভবনটি জরাজীর্ণ না হওয়া সত্বেও সরকারের অনুমতি না নিয়ে মহিলা সদস্য ছেনোয়ারা দিনমজুর দিয়ে ভবনটি ভেঙে ফেলেন। শুধু তাই নয়, নিজের ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে ভবনটি ভেঙে সব মালামাল বিক্রি করে দেন। এ খাতে মহিলা ইউপি সদস্য মালামাল বিক্রি করে সরকারের দেড় লক্ষাধিক টাকা মূল্যের সম্পদ আত্মসাৎ করেছেন। ভবনটি ভাঙ্গার সময় মহিলা ইউপি সদস্য উপস্থিত লোকজনকে জানিয়েছেন, তিনি সেটি ভাঙ্গার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট থেকে অনুমতি নিয়েছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন জনকে ইউএনও থেকে ৩০ হাজার টাকায় নিলাম নিয়েছেন বলেও মিথ্যাচার করেন।
এ বিষয়ে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পারভেজ চৌধুরী বলেন, সরকারী কোন স্থাপনা ভাঙ্গতে হলে একটি নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে নিলামের মাধ্যমে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হয়। আমি চাইলেতো কাউকে অনুমতি দিতে পারিনা। তবে যদি কেউ আইন অমান্য করে গায়ের জোরে কিছু করে থাকে- তাহলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
স্থানীয় সচেতন মহলের দাবি, ছেনোয়ারা বেগম একজন জনপ্রতিনিধি হওয়া সত্বেও কোন নিয়মনীতি না মেনে সরকারি স্থাপনা ভাঙ্গার রীতিনীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে সরকারি ভবন ভেঙে চরম বেআইনী কাজ করেছেন। শুধু মহিলা মেম্বার কেন এ ধরনের কাজ কোন দায়িত্বজ্ঞানহীন লোকও করতে পারে না। সরকারি নিয়মনীতি না মেনে ভবন ভাঙ্গা এবং ভবনের মাল বাইরে বিক্রি করার দায়ে তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় আইনী পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান তারা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •