জি নিউজ :

প্রথমদিকে নুসরতের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর সামনে আসার পর তা নিয়ে কিছু কম বিতর্ক হয়নি। সমালোচকরা অভিনেত্রীর ‘বহুগামিতা’ নিয়ে প্রশ্ন তুলতেও ছাড়েননি। তবে সেসময় নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan) পাশে দাঁড়িয়েছিলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। নুসরতের সমালোচনাকারীদের একহাত নিয়ে তসলিমা (Taslima Nasrin) কড়া ভাষায় লিখেছিলেন, ”পুরুষের বহুগামিতা নিয়ে কই প্রশ্ন ওঠে না তো? ” বৃহস্পতিবার নুসরত জাহানের মা হওয়ার পরও নতুন মা-কে শুভেচ্ছা জানাতে ভুললেন না তসলিমা। তবে এক্কেবারে নিজস্ব ভঙ্গিমায়।

এদিনও নুসরতের (Nusrat Jahan) উদ্দেশ্যে লেখা শুভেচ্ছা বার্তায় তসলিমা (Taslima Nasrin) পুরুষতান্ত্রিক সমাজের প্রতি কটাক্ষের সুরে লেখেন, ”কার ঔরসজাত সন্তান সেটা বড় কথা নয়। বরং নুসরত যে মা হতে চেয়েছেন, এত সমালোচনা-বিতর্কের পরও নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়াননি, সেটাই বড় কথা। পুরুষতান্ত্রিক সমাজে ‘সিঙ্গল মাদার’ হওয়া তো আর চারটিখানি কথা নয়”।

ফেসবুকে কথোপকথনের আঙ্গিকে লেখা লম্বা পোস্টে তসলিমা (Taslima Nasrin) তাঁর মতামত তুলে ধরেছেন। লিখেছেন, ”উইশ টুইশে কিছু হয় না। দোয়া আশীর্বাদ এগুলো কথার সৌন্দর্য। নুসরত প্রতিষ্ঠিত মেয়ে। কারো দাসিবাঁদি নয়। নিজের ইচ্ছের মূল্য দিতে জানে। সে তাঁর সন্তানকে ভালো মানুষ করবে, এ আমার বিশ্বাস।”

এখানেই শেষ নয়, কেরিয়ারের তুঙ্গে পিতৃ পরিচয় লুকিয়ে নুসরতের মা হওয়ার সিদ্ধান্তকে প্রশংসা করেছেন তসলিমা (Taslima Nasrin) । তাঁর কথায়, বহু ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, নিজের জীবনকে বেশি গুরুত্ব দেওয়ার জন্য বিয়ে করার বা মা হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন না মেয়েরা। সেটা তাঁদের একান্তই ব্যক্তিগত ইচ্ছা। কিন্তু নুসরত নিজে মা হতে চেয়েছেন। কটাক্ষ,নিন্দা, সমালোচনার পরও নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়াননি। লেখিকার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ”বাচ্চা মানুষ করতে গিয়ে অনেকের জীবন নাশ হয়ে যায়। বাচ্চা তো যে কেউ হওয়াতে পারে, মানুষ করতে ক’জন পারে! মানুষ করতে পারলে কুলাঙ্গারে দুনিয়া এত ভরা থাকতো না।”

তবে শুধু তসলিমা নাসরিন (Taslima Nasrin) নন, বৃহস্পতিবার পিতৃপরিচয় লুকিয়ে রেখেই সন্তানের জন্ম দেওয়ার মতো সাংসদ, অভিনেত্রী নুসরতের সাহসী সিদ্ধান্তকে কুর্নিশ জানিয়েছেন আরও অনেকেই। তা হ্যাঁ, সমালোচকের অভাব কোনওদিনই হয়না। তাঁরা এখনও নুসরতের সন্তানের পিতৃপরিচয় খুঁজতে ব্যস্ত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •