নিজস্ব প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের ফাক্রিকাটা মুরার কাচা এলাকার শাহ আলম ও ফাক্রিকাটা গ্রামের আবুল ফজল গংদের মধ্যে জমিজমা নিয়ে চলেছে দীর্ঘ বিরোধ। এ বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ আবুল ফজল গংদের ভাড়াটিয়া একদল সন্ত্রাসী রাতের অন্ধকারে হামলা চালিয়ে একটি বাড়ি ভাংচুর করে মাটির সাথে মিশিয়ে দেয় এবং বাড়ীতে রক্ষিত সম্পুর্ণ মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় নুরুল আলম,ছৈয়দ করিমসহ অনেকে জানান বাড়ির লোকজনকে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে দেশিও অস্ত্রদিয়ে ব্যাপক মারধর করে। এসময় তাদের হামলায় বাড়িতে থাকা শাহ আলমের স্ত্রী খোসনে আরা বেগম,মোঃ নুরুজ্জামান (৭৬) পিতা মৃত মাশরাফ আলী,তার বোন আমেনা খাতুন (৭৮) গুরুতর আহত হয়। আহতরা কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। আহতদের মধ্যে খোসনে আরা’র অবস্থা আশংকা জনক বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। ভুক্তভোগী শাহ আলম জানান,আবুল ফজলের নেতৃত্বে ২০/৩০ জনের একটি সন্ত্রাসী দল গত সোমবার রাত ২ টার সময় আমার বাড়িতে ঢুকে তান্ডব চালায়। আমার স্ত্রী, শাশুর-শাশুড়ীকে বেঁধে মারধর করে বাড়িতে রক্ষিত নগদ ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা,৩/৪ ভরী স্বর্ণ,২ লক্ষ টাকার বিভিন্ন মালামাল সামগ্রী, বসত ভিটার গাছপালা কেটে মোট ৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করে। এবিষয়ে আমি রামু থানায় অভিযোগ দায়ের করি।

জানতে চাইলে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ফরহাদ আলী বলেন,ঘটনার বিষয়ে আমি অবগত আছি বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভিযুক্ত আবুল ফজল জানান আমার জমি দখল করে একটি ফুসের ঘর করেছিল শাহ আলম। খবর পেয়ে আমি লোকজন নিয়ে এসে ভেঙ্গে ফেলেছি। এসময় তারা সামান্য আহত হয়। তবে বিষয়টি নিয়ে আদালতে মামলা চলমান আছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •