আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তালেবান মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, তাদের শাসনে সংগীতের অনুমোদন থাকবে না। মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ইসলামে সংগীত নিষিদ্ধ। তবে আশা করছি, চাপ দেওয়ার বদলে মানুষ নিজেরাই যাতে সংগীত এড়িয়ে চলে সে সম্পর্কে আমরা সচেতন করতে পারব।

আফগানিস্তানে ১৯৯৬-২০০১ পর্যন্ত তালেবান শাসনে সংগীত, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র কঠোরভাবে নিষিদ্ধ ছিল। আইন অমাণ্যকারীদের ভয়াবহ শাস্তির মুখে পড়তে হত।

মার্কিন নেতৃত্বাধীন অভিযানে তালেবানরা ক্ষমতা থেকে উৎখাত হলে দেশটিতে আবার সংগীত চর্চা শুরু হয়। আফগানিস্তান জাতীয় সংগীত ইন্সটিটিউট গড়ে তোলা হয়। বিভিন্ন উৎসব ও কনসার্ট আয়োজন করা হত।

মুজাহিদ দাবি করেছেন, নারীদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ ভিত্তিহীন। তিনি বলেছেন, নারীদের বাড়িতে থাকতে হবে না বা সব সময় মুখ ঢেকে রাখতে হবে না। তিন দিন বা তার বেশি ভ্রমণে পুরুষ আত্মীয়ের তত্ত্বাবধানের বিষয়ও থাকবে না। নারীরা ধীরে ধীরে তাদের দৈনন্দিন রুটিনে ফিরতে পারবে।

তিনি বলেন, নারীদের যদি স্কুল, অফিস, বিশ্ববিদ্যালয় বা হাসপাতালে যেতে হয় তাহলে তাদের সঙ্গে পুরুষ আত্মীয়ের (মাহরাম) থাকার দরকার নাই।

মঙ্গলবার জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ নারীদের সতর্ক করে বলেছিলেন, উপযুক্ত ব্যবস্থা গড়ে তোলার আগ পর্যন্ত নারীদের বাড়িতে থাকতে হবে। কারণ নারীদের হয়রানি বা আহত না করতে অনেক তালেবান যোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়নি।

তার কথায়, নতুন যোদ্ধা ও যাদের প্রশিক্ষণ হয়নি তারা নারীদের প্রতি দুর্ব্যবহার করতে পারে বলে আমরা উদ্বিগ্ন। সূত্র: বিবিসি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •