মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

চাঞ্চল্যকর মেজর (অব:) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী সাহিদুল ইসলাম প্রকাশ সিফাত এর আংশিক সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার ২৪ আগস্ট বিকেলে কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইলের আদালতে তাঁর সাক্ষ্য গ্রহন করা হয়। বুধবার ২৫ আগস্ট তাঁর বাকী সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে মামলার ১৫ জন আসামীর পক্ষে পৃথক পৃথক ভাবে তাঁকে জেরা করা হবে।

রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী ও পিপি এডভোকেট ফরিদুল আলম এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার ২৪ আগস্ট সকাল ১০ টায় আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর প্রথমে মামলার আসামী লিয়াকত আলী, প্রদীপ কুমার দাশ ও লিটন মিয়ার পক্ষে তাদের আইনজীবীরা বাদী শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌসকে তাঁর দেওয়া সাক্ষ্যের বিপরীতে জেরা করেন। এর পরপরই বিকেল সাড়ে ৪ টা হতে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত মামলার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী সাহিদুল ইসলাম প্রকাশ সিফাত এর আংশিক সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। মেজর (অব:) সিনহার ‘জাস্ট গো’ ডকুমেন্টারি ফ্লিম টিমের সদস্য ছিলেন সাক্ষী সাহিদুল ইসলাম প্রকাশ সিফাত। তিনি বরগুনা জেলার বামনা উপজেলার পশ্চিম শফিপুর গ্রামের নুরুল মোস্তফা হাফেজ এর পুত্র। সাহিদুল ইসলাম প্রকাশ সিফাত স্টাম্পফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। ঘটনার সময় সিফাত মেজর (অব:) সিনহার গাড়িতে ছিলেন।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি (পাবলিক প্রসিকিউটর) এডভোকেট ফরিদুল আলম, অতিরিক্ত পিপি এডভোকেট মোজাফফর আহমদ, এপিপি ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ
মঙ্গলবার ২৪ আগস্ট চাঞ্চল্যকর মেজর (অব:) সিনহা মোহাম্মদ মামলার মামলার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী সাহিদুল ইসলাম প্রকাশ সিফাত এর আংশিক সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

সাক্ষ্য গ্রহণকালে আসামীরা সকলে আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। মঙ্গলবার সকালে আসামীদের কড়া নিরাপত্তায় কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। মামলায় কারাগার থেকে আদালতে আনা ১৫ আসামি হলো: বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির তৎকালীন পরিদর্শক লিয়াকত আলী, টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, দেহরক্ষী রুবেল শর্মা, টেকনাফ থানার এসআই নন্দদুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া।প, কনস্টেবল সাগর দেব, এপিবিএনের এসআই মো. শাহজাহান, কনস্টেবল মো. রাজীব ও মো. আবদুল্লাহ, পুলিশের মামলার সাক্ষী টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরের মারিশবুনিয়া গ্রামের নুরুল আমিন, মো. নিজামুদ্দিন ও আয়াজ উদ্দিন।

পিপি এডভোকেট ফরিদুল আলম জানান, সাহিদুল ইসলাম প্রকাশ সিফাতকে আসামীদের পক্ষে জেরা সমাপ্ত হওয়া সাপেক্ষে বুধবার মামলার অন্যান্য সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, মঙ্গলবার বাদী শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস এর সাক্ষ্য ও জেরা শেষ হয়েছে। মঙ্গলবার ২৪ আগস্ট মামলার আসামী লিয়াকত আলী, প্রদীপ কুমার দাশ ও লিটন মিয়ার পক্ষে তাদের আইনজীবী এডভোকেট চন্দন দাশ, এডভোকেট রানা দাশ গুপ্ত ও সৈকত কান্তি দে বাদী শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌসকে জেরা করেন। মামলার অবশিষ্ট ১২ জন আসামীর পক্ষে বাদী শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌসকে সোমবার জেরা সম্পন্ন করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •