প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে সুইমিং জোন করে সী-নেটিং ব্যবস্থা চালু করার দাবি জানিয়েছে ছাত্রলীগ।
২৩ আগস্ট সোমবার সকাল ১১টায় কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের শ’খানেক নেতাকর্মী নিয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক ও সমুদ্র সৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. মামুনুর রশীদকে এ সংক্রান্ত ২পৃষ্টার একটি আবেদন পত্র জমা দেয় জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ছাত্রনেতা মইন উদ্দীন।
এসময় বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেয় জেলা প্রশাসক।
ছাত্রনেতা মইন উদ্দীন বলেন- কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের একটা নির্দিষ্ট জায়গাকে সুইমিং জোন হিসেবে ঘোষণা করে সেখানে ‘সী-নেটিং’ করা দরকার। ‘সী-নেটিং’ নিশ্চিত করা হলে গোসল করতে নেমে পর্যটক ও স্থানীয়দের মৃত্যু ঝুঁকি থাকবে না।
বিশ্বের প্রায় সব দেশের সমুদ্র সৈকতেই ‘সী-নেটিং’ করে পর্যটকদের জন্য সুইমিং জোন করা হয়েছে।
পর্যটন বিকাশে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে এটা করা খুবই দরকার। ‘সী নেটিং’ এর অভাবে সৈকতে বেড়াতে গিয়ে অনেক তাজা প্রাণ ঝরে যাচ্ছে। প্রতিদিন মৃত্যুর সংবাদ শুনতে হয় কক্সবাজারবাসীকে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •