অনলাইন  ডেস্ক: দীর্ঘ দুই দশক ধরে বিদেশি সেনাদের সহযোগী হিসেবে কাজ করেছে কিছু আফগান নাগরিক। তালেবান দেশটির ক্ষমতা দখলের পর নিজ সেনা ও নাগরিক এবং তাদের সহযোগিতা করা ওই সব আফগানদের সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এমনই একটি বিমানে সন্তান প্রসব করেছেন এক আফগান নারী। খবর বিবিসি ও সিএনএন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ১৫ আগস্ট তালেবান বাহিনী কাবুল দখলের পর থেকেই ঝুঁকিতে থাকা হাজার হাজার আফগানকে যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশে সরিয়ে নিচ্ছে মার্কিন বাহিনী। এ রকম যুক্তরাষ্ট্রগামী একটি ফ্লাইটে উঠা নারীদের একজন সন্তান প্রসব করেছেন। বিমানেই সন্তান প্রসবের পর ওই নারী ও পরিবারের সদস্যদের জার্মানিতে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, মার্কিন নাগরিক এবং ঝুঁকিতে থাকা আফগান ও বিদেশিদের সহায়তাকারী আফগানদের যুক্তরাষ্ট্রে সরিয়ে আনা বিষয়ক কর্তৃপক্ষ ইউএস এয়ার মোবিলিটি কমান্ড এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রগামী ফ্লাইটটি কাবুল থেকে বিমানবন্দর ত্যাগের কয়েক ঘণ্টা পরই ওই নারীর প্রসব বেদনা উঠে।

ওই সময় বিমানটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৮ হাজার মিটার ওপরে অবস্থান করছিল। এতে বিমানটিতে অক্সিজেনের কিছু ঘাটতি দেখা দেয়। পরে পাইলট বিমানটি কিছুটা নিচে নামিয়ে আনায় অক্সিজেন সংকটের সমাধান হয়।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, আকাশে থাকা অবস্থাতেই বিমানটিতে সন্তানের জন্ম দেন ওই আফগান নারী। কিন্তু বিমানে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মেডিকেল সহযোগিতা দেওয়ার ব্যবস্থা ছিল না। তাই জার্মানির রামস্টেইন বিমান ঘাঁটিতে জরুরি অবতরণে বাধ্য হয় মার্কিন বিমানটি।

পরে রামস্টেইন বিমান ঘাঁটির হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ওই নারীকে। বর্তমানে সন্তান ও পরিবারের কয়েকজন সদস্যসহ রামস্টেইন বিমান ঘাঁটির হাসপাতালে অবস্থান করছেন ওই নারী। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে জানানো হয়েছে, মা ও নবজাতক বর্তমানে সুস্থ ও শঙ্কামুক্ত রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •