মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন,বাঁশখালী (চট্টগ্রাম):
চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে দিনদুপুরে এক যুবককে  অপহরণ করে নির্মম পিঠুনি দিয়ে আহত করেছে এক ইউপি চেয়ারম্যানের লোকজন। বাঁশখালীর ছনুয়া ইউনিয়নের খুদুকখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ফজল করিম মানিক জানান,  শনিবার (২১ আগস্ট) দুপুর ১ টার দিকে স্থানীয় যুবক জয়নাল আবেদীনকে দুপুর ১টা নাগাদ সরলিয়া বাজার ব্রীজ এলাকা থেকে অপহরণ করে চেয়ারম্যান হারুনের বাড়িতে নিয়ে যায় স্থানীয় সন্ত্রাসী ছৈয়দ মুস্তফা প্রকাশ বাক্কাইয়া, ইয়াবা বিক্রেতা আশেকুর রহমান আশেক ও মিজানুর রহমান নামের তিন সন্ত্রাসী। তারা স্থানীয় যুবক জয়নাল প্রকাশ মানিককে  নিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করেন। সন্ত্রাসীদের প্রচন্ড আঘাতে  হুশ হারিয়ে ফেলেন মানিক।

পরে পুলিশের জরুরি হটলাইন নাম্বারে (৯৯৯) ফোন করে ঘটনার বিষয়ে অবগত করা হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হলে সন্ত্রাসীরা আহত অবস্থায় মানিককে ফেলে চলে যায়। পুলিশ তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

কি কারণে এভাবে তুলে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে জানতে চাইলে গুরুতর আহত জয়নাল আবেদীন ওরফে মানিক মুঠোফোনে বলেন, ‘পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার উপর হামলা চালানো হয়েছে।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল কবির মুঠোফোনে বলেন, ’ঘটনাস্থলে আমাদের অফিসার আজিমুল হক আছেন। আপনি তাকে ফোন দেন।’

জানতে চাইলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত বাঁশখালী থানার এসআই (উপ-পরিদর্শক) আজিমুল হক বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে এসেছি। ঘটনার কারণ উদঘাটনের জন্য তদন্ত চালাচ্ছি।’

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলমান বলে জানিয়েছেন সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার জয়নাল আবেদীন মানিক। তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, ‘আমরা থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিয়েছি।’

এ বিষয়ে জানতে ছনুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম হারুনুর রশীদের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •