সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও:
চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী কিশলয় আর্দশ শিক্ষা নিকেতন (স্কুল)প্রধান ফটক এবং বাউন্ডারী দেয়াল যেনো পরিণত হয়েছে অঘোষিত ডাস্টবিন।
নিয়মিত পঁচা-ময়লা আবর্জনা ফেলায় দুর্গন্ধে পথচারীদের চলাচল দুষ্কর হয়ে পড়েছে। ব্যাহত হচ্ছে স্কুলের পরিবেশ।
পাশেই নির্মানাধীন ইউনিয়ন ভুমি অফিস ও জেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনি। তবে কারো পক্ষ থেকেও এ সমস্যা নিরসনে দৃশ্যমান কোনো প্রশাসনিক উদ্যোগ নেয়া হয়নি।
সরজমিন দেখা গেছে, উপজেলার খুটাখালী বাজারের দক্ষিন পাশে কিশলয় ও তমিজিয়া ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসা অবস্থিত। এ দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অন্তত আড়াই হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে।
প্রতিষ্ঠান দুটিতে শিক্ষক-শিক্ষিকা রয়েছেন প্রায় শতাধিক। কিন্ত কিশলয় স্কুলের দেয়াল ঘেঁষে আশপাশের পঁচা-ময়লা আবর্জনা ফেলায় দুর্গন্ধে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা এখন দুষ্কর হয়ে পড়েছে।
স্কুলের পক্ষ থেকে ময়লা আবর্জনা ফেলা নিষেধ করা হলেও কিন্ত এই নিষেধাজ্ঞা কেউ না মেনে প্রতিনিয়তই পঁচা-ময়লা আবর্জনা ফেলে যাচ্ছেন রাস্তার উপর।
স্কুলের একাধিক শিক্ষক অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যালয়ের দেয়াল সংলগ্ন পঁচা-ময়লা আবর্জনা না ফেলার জন্য একাধিকবার অনুরোধ করা হয়েছে।
তারপরও আজ পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের নানা সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। অনেকেই নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বিষয়টি দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তারা জোর দাবি জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে খুটাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বলেন, পরিবেশ রক্ষার জন্য সাধারণ লোকজনের মধ্যে সচেতনতার অভাব রয়েছে। বাজারের আশপাশের বাসিন্দাদের রাস্তার উপর ও গুরুত্বপুর্ন স্থানে ময়লা আবর্জনা না ফেলার জন্য বাজার কমিটির মাধ্যমে নিষেধ করা হয়েছে। অনেকে না বুঝেই রাস্তা ও দেয়াল ঘেষে ময়লা আবর্জনা ফেলে থাকেন। এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •